নিষেধাজ্ঞা সত্বেও লোহাগড়ায় পুকুর থেকে ৫ লাখ টাকার মাছ ধরে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ

লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি॥ নড়াইলের লোহাগড়ায় আদালতের চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা থাকা সত্বেও জোর করে পুকুর থেকে প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ ধরে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ক্ষতিগ্রস্থর অভিযোগে জানা গেছে, লোহাগড়া মৌজার সি,এস ১/১ এস,এ ০১ নং খতিয়ানের রেকর্ডকৃত সাবেক ৮৫৬/১৩২৮ নং দাগের ৭৫ শতাংশ ও জয়পুর মৌজার সি,এস ৯২৬, ১৭৩০, ১৭৪০, এস,এ খতিয়ান নং-৮০৮ এর রেকর্ডকৃত সাবেক ৩৪৪৪, ৩৫৩৮, ৩৪৪৭, ৩৪৪৮, ৩৫৩৭, ৩৪৯১, ৩৪৪৭ নং দাগের ২৩৩ শতক সহ মোট ৩০৮ শতক নালিশী জমি দীর্ঘদিন যাবত লোহাগড়ার পোদ্দারপাড়া গ্রামের মৃত আজিজার রহমান ভুইয়ার ছেলে মোঃ আকরাম হোসেন ভুইয়া ভোগদখল পূর্বক মাছ চাষ করে আসছেন।
আকরাম হোসেন ভুইয়া গত ২৯ আগষ্ট ওই জমি নিয়ে খুলনা বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয়ে মিস আপিল মামলা করেন। ওই মামলা এখনও বিচারাধীন। তাছাড়া ওই জমির উপর আকরাম হোসেন ভুইয়ার পক্ষে লোহাগড়া সহকারী জজ আদালতের চিরস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা রয়েছে। অথচ আইন অমান্য করে গত ২৮ ডিসেম্বর সকালে আকরাম হোসেন ভুইয়ার প্রতিপক্ষরা ওই পুকুর থেকে প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ ধরে নিয়ে যায় বলে অভিযোগ। পুলিশের উপস্থিতিতে মাছ ধরার এই ঘটনা ঘটেছে বলেও আকরাম হোসেন ভুইয়া অভিযোগ করেন। এ বিষয়ে ক্ষতিগ্রস্থ আকরাম হোসেন ভুইয়া বিচার চেয়ে আবারো নড়াইল জেলা প্রশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ দাখিল করেছেন। এব্যাপারে লোহাগড়া থানার ওসি মোঃ শফিকুল ইসলাম বলেন, ওই স্থানে শান্তি শৃংখলা রক্ষার জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছিল।

শেয়ার