হাত-পা ভাঙ্গা অবস্থায় যশোরে শীর্ষ সন্ত্রাসী শিশির ও শুভ গ্রেপ্তার, অস্ত্র-গুলি উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে এমপি কাজী নাবিল আহম্মেদের পোষ্য সন্ত্রাসী ম্যানসেল বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড শিশির ঘোষ ও রাব্বি ইসলাম শুভকে অস্ত্র-গুলি ও বোমাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে সদর উপজেলার এড়েন্দা গ্রামে দু’টি সন্ত্রাসী বাহিনী গোলাগুলিকালে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত অবস্থায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। হত্যা, ধর্ষণ, ডাকাতি, ছিনতাই, অস্ত্র, বোমা ও মাদকসহ শিশিরের বিরুদ্ধে ১৫টি এবং শুভ’র বিরুদ্ধে ৯টি মামলা রয়েছে।
শিশির ঘোষ শহরের ষষ্ঠিতলা এলাকার নিত্য ঘোষের ছেলে এবং রাব্বি ইসলাম শুভ রেলগেট খাদ্য গুদাম এলাকার রবিউল ইসলাম রবির ছেলে।
এব্যাপারে পুলিশ বাদী হয়ে আটক দু’জনসহ ১২ জনের বিরুদ্ধে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেছে।
এ মামলার পলাতক আসামিরা হলো, শংকরপুর পশু হাসপাতাল এলাকা কাজী তৌহিদের ছেলে কাজী রাকিব ওরফে ভাইপো রাকিব, তার বিরুদ্ধে একাধিক হত্যা, ডাকাতি, অস্ত্র, বোমা, ছিনতাই, চাঁদাবাজিসহ অন্তত দুই ডজন মামলা রয়েছে। বেজপাড়ার ফারুক হোসেনের ছেলে একাধিক মামলার আসামি সাহেদ হোসেন ওরফে হিটার নয়ন। বেজপাড়া বিহারী কলোনীর আলমের ছেলে রাব্বি ওরফে হালকা রাব্বি ওরফে আকাশ, রেলগেট পশ্চিমপাড়া কলাবাগান বস্তির মাদক দম্পতি রেখা-ফায়েকের দুই ছেলে চিহ্নিত সন্ত্রাসী সাগর ও রমজান। এ দুই সহোদরের বিরুদ্ধেও হত্যাসহ একাধিক মামলা রয়েছে। একই এলাকার মৃত নজীর শেখের ছেলে মনু মিয়া, চাঁচড়া তেঁতুলতলার মৃত ফারুক হোসেনের ছেলে কুদরত, বেজপাড়া টিবি ক্লিনিক এলাকার নুরুন্নবী ওরফে ট্যাবলেট সোহেল, শংকরপুরের ইয়াছিন ও ষষ্ঠীতলার তরিকুল।


সূত্র মতে, যশোর সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহম্মেদ শহরের ষষ্ঠীতলার আলমাস হোসেনের ছেলে মেহেবুব আলম ম্যানসেলকে দিয়ে গঠন করেছেন একটি সন্ত্রাসী বাহিনী। ম্যানসেল সেই বাহিনীর সদস্যদের দিয়ে খুন, ধর্ষণ, ডাকাতি, ছিনতাই, চাঁদাবাজি, বোমাবাজি, অস্ত্র ও মাদকের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে শিশির একজন কুখ্যাত খুনি ও সন্ত্রাসী। তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ, খুনসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। কয়েক বছর আগে এলাকার এক কিশোরীকে জোর করে সিঁদুর পরিয়ে বিয়ে পরবর্তী ঘরসংসার করার ঘটনায় অপহরণ, ধর্ষণসহ একাধিক অভিযোগে তার বিরুদ্ধে মামলা হয়। ওই মামলায় তাকে ৪৬ বছরের সাজা প্রদান করেন আদালত। কিছুদিন হাজতবাসের পর আপিল করে জামিনে বেরিয়ে আবারো সন্ত্রাসী কর্মকা- শুরু করে। এ কারণে তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অভিযোগে প্রায় দেড় ডজন মামলা হয়েছে। কিন্তু শিশিরকে এ সকল সন্ত্রাসী কর্মকা-ে সর্বক্ষণ সহযোগিতা করে আসছে ম্যানসেল। তার বাহিনীতে রয়েছে জাফর, জাহিদ, অভি, ফয়সালসহ অন্ত্র দেড় ডজন উঠতি বয়সের যুবক।
একই ধরনের আরেকজন সন্ত্রাসী রাব্বি ইসলাম শুভ। সে রেলরোড খাটপট্টি এলাকার রবিউল ইসলাম রবির ছেলে। সেও এলাকায় অস্ত্রের মহড়া দেয়াসহ অপরাধ করে করে বেড়ায়। বিভিন্ন অভিযোগে তার বিরুদ্ধে ৯টি মামলা রয়েছে। শিশির ও শুভ দু’জন মিলে দুইডজন মামলার বোঝা মাথায় নিয়ে আবারো সন্ত্রাসী কার্যক্রম চালিয়ে আসছে। তারই অংশ হিসেবে গত ২৩ ডিসেম্বর বেলা ১১টার দিকে শিশির ও শুভসহ আরো কয়েকজন সন্ত্রাসী শহরের টিবি ক্লিনিক মোড়ে গুলি করে হত্যা করে সিঙাড়া-পুরির দোকান্দার টিপু সুলতানকে। সেই ঘটনার পর থেকে গা-ঢাকা দিয়েছিল শিশির, শুভসহ তাদের বাহিনীর অনেক সন্ত্রাসী।
কোতোয়ালি থানার এসআই বাবুন চন্দ্র বিশ্বাস জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ভোর রাত ৩টার দিকে সদর উপজেলার চৌগাছা সড়কের এড়েন্দা গ্রামে ওসমানের মেহগনি বাগানের কাছে দুই সন্ত্রাসী আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গোলাগুলি করে। খবর পেয়ে সেখানে গিয়ে সন্ত্রাসী শিশির ও শুভকে আটক করা হয়। উদ্ধার করা হয় একটি পিস্তল, একটি ম্যাগজিন, এক রাউন্ড গুলি, একটি ওয়ানশুটারগান এবং ১৯টি হাতবোমা। আটকের পর শিশির ও শুভ তাদের নিজস্ব অস্ত্র-গুলি এবং বোমা বলে স্বীকার করেছে। একই সাথে তারা প্রতিপক্ষের সাথে গোলাগুলিতে এবং হামলায় আহত হয়েছে বলে পুলিশকে জানিয়েছে।
এদিকে আটক দু’জনকে রাতেই যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা একেএম আজমল হুদা জানিয়েছেন, দু’টি সন্ত্রাসী গ্রুপ হামলা পাল্টা হামলায় আহত অবস্থায় অস্ত্র-গুলি ও বোমাসহ ওই দুইজনকে আটক করা হয়। তিনি আরো জানিয়েছেন, আটক শিশিরের বিরুদ্ধে ১৬টি এবং শুভ’র বিরুদ্ধে ৯টিসহ মোট ২৫টি মামলা রয়েছে। এঘটনায় পলাতক থাকা অপর আসামিদের আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার