ইয়াবাতেও ভেজাল!

সমাজের কথা ডেস্ক॥ নেশার বড়ি ইয়াবা এতদিন মিয়ানমার থেকে চোরাই পথে আসত বলে জানা গেলেও এবার চট্টগ্রামেই তা তৈরির একটি কারখানার সন্ধান মিলেছে।

ডবলমুরিং থানার বেপারি পাড়ার একটি বাড়িতে বসানো এই অবৈধ কারখানায় ইয়াবা তৈরিতে চক পাউডার, ট্যালকম পাওডারের সঙ্গে জন্ম বিরতিকরণ পিল ও প্যারাসিটামল ট্যাবলেটও ব্যবহার করা হচ্ছিল।

বাড়িটি থেকে আড়াই লাখ ইয়াবা বড়ির পাশাপাশি প্রচুর কাঁচামাল জব্দ করা হয়েছে, যা দিয়ে প্রায় ১০ লাখ ভেজাল ইয়াবা বড়ি প্রস্তুত করা যেত বলে পুলিশের দাবি।

ওই বাড়ি থেকে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা পুলিশকে জানিয়েছেন, তিন বছর ধরে তারা ভেজাল ইয়াবা তৈরি করে বিক্রি করছিলেন।

গত এক দশকে বাংলাদেশে মাদক হিসেবে সবচেয়ে আলোচিত যৌন উত্তেজক বড়ি ইয়াবা। মিয়ানমার থেকে চোরাই পথে তা আসে বলে দুই দেশের সীমান্ত বৈঠকে প্রতিবারই বাংলাদেশের পক্ষ থেকে ইয়াবা পাচার বন্ধের কথা বলা হয়।
চোরাই পথে আসার বন্ধ না হওয়ার মধ্যেই মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম নগরীর বেপারী পাড়ার বাড়িটিতে অভিযান শুরু করে পুলিশ।
ভোরে অভিযান শেষে শ্যামল মজুমদার (৩৭), আব্দুল্লাহ আল আমান (৩৪), মো. মামুন গোসেন (৩২) ও আয়শা সিদ্দিকা (২৭) নামে চার জনকে গ্রেপ্তার এবং ইয়াবা ও কাঁচামাল উদ্ধারের কথা জানানো হয়।

বিকালে সংবাদ সম্মেলন করে নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ-কমিশনার হাসান মো. শওকত সাংবাদিকদের কাছে অভিযানের বিস্তারিত তুলে ধরেন।

শেয়ার