মোরেলগঞ্জে ট্রলারে মারপিটের সময় নদীতে ঝাপ দিয়ে যুবলীগ নেতা নিখোঁজ

মশিউর রহমান মাসুম, মোরেলগঞ্জ ॥ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ পানগুছি নদীতে নিখোঁজ হয়েছেন খুলনার যুবলীগ নেতা খায়রুজ্জামান সবুজ (৩২)। শনিবার বেলা ১২টার দিকে একটি ট্রলারে করে সন্ন্যাসী এলাকায় যাবার সময় সবুজ ও তার বন্ধু খুলনা কেডিএ’র সার্ভেয়ার সামছুল আরেফিন রনি (৩৪)কে মারপিট শুরু করে তাদের সহযাত্রীরা। জীবন বাঁচাতে তারা নদীতে ঝাপিয়ে পড়েন। ওই সময় তাদের ডাক চিৎকারে মোরেলগঞ্জের গাবতলা এলাকার ট্রলার চালকরা ছুটে এসে রনিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে। কিন্তু নদীতে ডুবে যায় সবুজ। তিনি খুলনা সিটি কর্পোরেশনের ২০ ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক এবং দু’জনেরই বাড়ি খুলনার শেখ পাড়া এলাকায় বলে জানা গেছে।
চিকিৎসাধীন অবস্থায় রনি বলেন, একটি ৫তলা ভবনের ডিজাইন করার কথা বলে হাসান নামে এক যুবক শনিবার খুলনা থেকে তাকে ও সবুজকে মোরেলগঞ্জে নিয়ে আসে। বেলা ১১টার দিকে তারা একটি ট্রলারে উঠে বলেশ্বর নদীর দিকে চালাতে থাকে। পথিমধ্যে গাবতলা এলাকায় হঠাৎ করেই রনি ও সবুজকে ছুরিকাঘাত ও মারপিট শুরু করে ট্রলারে থাকা অপর ৭ যুবক। ওই সময় জীবন বাঁচাতে তারা দু’জনই নদীতে ঝাপ দেয়। মোরেলগঞ্জ থানার ওসি রাশেদুল আলম বলেন, রনি ও সবুজের সাথে থাকা অজ্ঞাত পরিচয়ের ৭জনকে ইন্দুরকানি থানা পুলিশ আটক করেছে। তবে কি কারণে এই ঘটনা ঘটেছে তা পরিস্কার করে বলা যাচ্ছে না। এদিকে সবুজের সন্ধ্যানে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল নদীতে টহল শুরু করেছে। কেডিএ’র সার্ভেয়ার রনিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে।

শেয়ার