পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে গণধর্ষণ

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাত্র দেখানোর কথা বলে ডেকে নিয়ে এক কিশোরীকে (১৮) গণধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। ভুক্তভোগী কিশোরী থানায় মামলা দায়ের করলে পুলিশ দুজনকে গ্রেফতার করেছে। শুক্রবার ভোররাতে নেত্রকোনার মদন উপজেলায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। মদন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শওকত আলী ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।
তিনি জানান, সকালে থানায় হাজির হয়ে ওই কিশোরী মামলা দায়ের করলে অভিযুক্তদের গ্রেফতার করে পুলিশ। ওসি জানান, ধষর্ণের ঘটনায় দায়ের করা মামলায় গ্রেফতাররা হলেন, মদন উপজেলা সদরের জাহাঙ্গিরপুর এলাকার কালা মিয়ার ছেলে ফজলুল হক (৪৫) ও মহিউদ্দিন মিয়ার ছেলে একদিল মিয়া (৪৬)।
এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, নেত্রকোনার খালিয়াজুরী উপজেলার গছিখাই গ্রামের ওই কিশোরী মদন পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সেকুল মিয়ার বাসায় গৃহপরিচারিকার কাজ করত।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় আসামি একদিল কিশোরীকে ভাল পাত্রের সাথে বিয়ে দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কাউন্সিলরের বাসা থেকে নিয়ে যায়। পরে মদনের জলসিয়ার বিল হাওর এলাকার একটি পরিত্যাক্ত ঘরে শুক্রবার ভোরে একদিল ও ফজলুল হক তাকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।
মদন থানার ওসি মো. শওকত আলী জানান, শুক্রবার সকালে ওই কিশোরী অভিযোগ দেয়ারপর সকালেই মদন পৌর শহর থেকে আসামিদের গ্রেফতার করে আদালতে পাঠানো হয়েছে। গ্রেফতারের পর আসামি ফজলুল হকের কাছ থেকে ৪০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট পাওয়া গেছে। ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায়ও মাদক আইনে মামলা হয়েছে।
ওসি আরো জানান, কিশোরীর কাছে ধর্ষনের ঘটনার কিছু আলামত পাওয়া গেছে। বিস্তারিত আলামত ও সত্যতা পেতে কিশোরীকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে।

শেয়ার