ভবদহ এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে সহযোগীতার আশ্বাস হর্ষবর্ধন শ্রীংলার

মোতাহার হোসেন ও ইউনুস আলী, মণিরামপুর॥ বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা বলেছেন, ভবদহ এলাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে এ অঞ্চলের জনগনের পক্ষে তিনি সর্বোচ্চ কাজ করবেন। ভারত সব সময় বাংলাদেশের জনগনের পাশে আছে। বাংলাদেশের উন্নয়ন কাজে ভারত সহযোগীতা করে যাচ্ছে। তিনি এ সময় বাংলাদেশের উন্নয়নে ভারত সরকারের বিশেষ অবদানের কথা উল্লেখ করে বলেন, মংলা বন্দরের সাথে বাংলাদেশের অন্যান্য অঞ্চলের রেল যোগাযোগ স্থাপনে ৩৫ কোটি ডলার ব্যয়ে রেললাইন নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এছাড়া ভারত সরকারের সহযোগীতায় ১৩শ’৫০ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন রামপাল বিদ্যুৎ কেন্দ্র হচ্ছে। সম্প্রতি দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী খুলনা-কলকাতায় বিরতিহীন ট্রেন সার্ভিসেরও উদ্বোধন করেছেন। খুলনার খালিশপুরে টেকনোলোজী কলেজ, মংলায় খান জাহান আলী বিমান বন্দর নির্মাণের প্রস্তুতিসহ নানা উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন।
বৃহস্পতিবার যশোরের মনিরামপুর উপজেলার বাজিতপুর মহাশ্মানের নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর উদ্বোধনকালে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় ভারতীয় হাইকমিশনার লিখিত বক্তব্যে আরো বলেন, ইতোমধ্যে যশোরে নতুন ভিসা কেন্দ্র খোলা হয়েছে। ভিসা সার্ভিসকে আরো বেগবান করার জন্য খুব শিগগিরই খুলনায় সহকারী ভারতীয় হাই কমিশনার অফিস চালু করা হচ্ছে। বৌদ্ধনাথতলা মন্দিরের জন্য সীমানা প্রচীর নির্মাণ, বাজিতপুর মহাশশ্মানের মন্দির কমপ্লেক্স এবং কমিউনিটি সেন্টার নির্মাণের দুটি প্রকল্পে ২৫ লাখ টাকা অনুদানের ঘোষণা দেন তিনি। যার প্রথম কিস্তির ৬ লাখ ৮৬ হাজার টাকার চেক শশ্মান কমিটির কাছে হস্তান্তর করেন। এরপর তিনি যান উপজেলার মশিয়াহাটী ডিগ্রী কলেজ মাঠে ৫১ খন্ড কালী পূজা পরিদর্শনে। সেখানে এক সূধী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদান করেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় এমপি স্বপন ভট্টাচার্য্য। এসময় উপস্থিত ছিলেন যশোর রামকৃষ্ণ আশ্রম ও মঠের অধ্যক্ষ স্বামী জ্ঞান প্রকাশানন্দজী মহারাজসহ পূর্জা উদযাপন পরিষদ, হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদসহ রাজনৈতিক, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মশিয়াহাটী দুর্গা মন্দির নির্মাণে ৩০ লাখ টাকা অনুদানের ঘোষণা দেন। যার প্রথম কিস্তির ১৭ লাখ টাকার চেক মন্দির কমিটির কাছে হস্তান্তর করেন। এসময় ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রীংলা মণিরামপুর উপজেলায় আসতে পেরে নিজে আনন্দিত উল্লেখ করে আরো বলেন, ‘এজন্য মাননীয় এমপি এবং আমাদের বন্ধু স্বপন ভট্টচার্য্যকে ধন্যবাদ। এসব অনুষ্ঠানে যোগদান শেষে সন্ধ্যায় তিনি ঢাকার উদ্যোশে রওনা হন।

শেয়ার