প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার যশোরের জনসভা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাই সফল করবে: সাইফুর রহমান সোহাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আগামী ৩১ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সফলের লক্ষে যশোর জেলা ছাত্রলীগ আয়োজিত প্রস্তুতি সভায় সংগঠনটির কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ বলেছেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার কাজ চলছে। সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদমুক্ত সেই বাংলাদেশ গড়তে ছাত্রলীগের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। ছাত্রলীগকে জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার পাশাপাশি মাদকের বিরুদ্ধেও সোচ্চার হতে হবে। কারণ মাদকের ছোবলে পড়লে একটি জাতি ধ্বংস হতে বাধ্য। তাই জননেত্রীর উন্নয়নের ভ্যানগার্ড হিসেবে ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মীকে যেমন ভাল ছাত্র হতে হবে, তেমনি মাদকের বিরুদ্ধেও অবস্থান নিতে হবে।’
গতকাল যশোর জিলা স্কুল অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাইফুর রহমান সোহাগ এসব কথা বলেন। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রওশন ইকবাল শাহীর সভাপতিত্বে কর্মী সভায় সংগঠনের কেন্দ্রীয় নেতারা ছাড়াও খুলনা, সাতক্ষীরা, মাগুরা, ঝিনাইদহ, নড়াইলের ছাত্রনেতারা বক্তব্য রাখেন। এছাড়া কেন্দ্রীয় নেতারা শহরের বকুলতলাস্থ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। কবর জিয়ারত করেন যশোর জেলা ছাত্রলীগের প্রয়াত নেতা মনোয়ার হোসেন ইমন ও মনিরুল ইসলাম তুহিনের। অনুষ্ঠানের শুরুতে রক্তাক্ত একাত্তর ও ১৯৭৫ সালে শহীদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। প্রস্তুতি সভায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম মিলন।
জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছালছাবিল আহমেদ জিসানের পরিচালনায় কর্মী সভায় প্রধান অতিথি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ গত কয়েক বছরে অনেক এগিয়ে গেলেও কাক্সিক্ষত মাত্রায় হয়নি। বিএনপি-জামায়াত তথা এদেশে বসবাসকারী পাকিস্তানী দোসররা নানা ষড়যন্ত্র করে দেশকে পিছনে ফিরিয়ে নিয়ে যেতে চায়। তারা এদেশে জঙ্গিবাদী তৎপরতা চালিয়ে অকার্যকর করার চক্রান্ত করে। ক্ষমতায় থাকলে বিদেশে হাজার কোটি টাকা পাচার করেছে। এতিমদের টাকা আত্মসাত করেছেন। এখন সেই তারেক রহমান বিদেশে বসে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র করছেন। আর খালেদা জিয়া দেশে বসে জঙ্গিবাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাই স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়তে, বাংলার মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে এদেশ থেকে জিয়া পরিবারকে উৎখাত করতে হবে। ভবিষ্যতে জামায়াত শিবির আর বিএনপির কোন নেতাকর্মীকে রাজপথে নামতে দেওয়া হবে না। ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে এব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে।’
যশোর শামস্-উল-হুদা স্টেডিয়ামে আসছে ৩১ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনসভা সম্পর্কে সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, ‘আগামী নির্বাচন বাংলাদেশের জন্য অত্যান্ত গুরুত্বপূর্ণ। সেই নির্বাচনকে সামনে রেখে এই জনসভা হচ্ছে। কোন সহযোগী সংগঠনের সহায়তা না নিয়েই জনসভাটি সফল করার সক্ষমতা রয়েছে যশোর ছাত্রলীগের। ছাত্রলীগের প্রতিটি নেতাকর্মীকে এখন থেকেই প্রস্তুতি নিতে হবে। জনসভার দিন ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাই স্টেডিয়াম কানায় কানায় পূর্ণ করবে।’
ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে প্রধান অতিথি বলেন, ‘বাংলাদেশ সৃষ্টির আগে থেকেই এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। একাত্তরের আগে পরে বঙ্গবন্ধুর আওয়ামী লীগের ভ্যানগার্ড হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে ছাত্রলীগ। মহান মুক্তিযুদ্ধে ছাত্রলীগের ১৭ হাজার নেতাকর্মী শহীদ হয়েছেন। আর বর্তমানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভ্যানগার্ডের দায়িত্ব নিয়েছে ছাত্রলীগ। সেই দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে আগামী নির্বাচনে নৌকা প্রতীক জয়ী করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আবারো রাষ্ট্র ক্ষমতা গ্রহণের জন্য ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে।’
কর্মী সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান তুহিন, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রেজাউল ইসলাম রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, খুলনা মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রাসেল, যশোর জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সুব্রত বিশ্বাস, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম, খুলনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি পারভেজ হাওলাদার, সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন, ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাকিল আহমেদ, সাতক্ষীরা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল ইসলাম রেজা, মাগুরা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসান রুবেল, শার্শা উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আকুল হোসাইন, যশোর সদর উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক রবিউল ইসলাম, সরকারি এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ও পুরাতন হল ছাত্রলীগের সভাপতি আসলাম হোসেন, সরকারি এমএম কলেজের সাংগঠনিক সম্পাদক আল-মামুন হোসেন রনি, ডুমুরিয়া উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ মাসুদ, মণিরামপুর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক ফজলুর রহমান, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মসিয়ূর রহমান হল ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলিম, নওয়াপাড়া পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ছাব্বির রহমান শান্ত প্রমুখ।

শেয়ার