মণিরামপুরে পরকীয়ার জের ধরে মৃত্যু ঘটনায় হত্যা মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, মণিারমপুর ॥ মণিরামপুরে প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে পরকীয়ার জের ধরে এক ব্যক্তির মৃত্যুর ঘটনায় এক প্রবাসীর স্ত্রীর নাম উল্লেখসহ আরো ২/৩ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করে থানায় হত্যা মামলা হয়েছে। মৃত আশরাফুলের স্ত্রী হামিদা আক্তার মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলা নং-১৭। মামলার এজাহারে এটিকে হত্যাকান্ড বলে দাবি করেছেন মামলার বাদি।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, প্রবাসী রাজ্জাকের স্ত্রী আটক খালেদা খাতুন পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে তার স্বামী বিদেশে যাওয়ার পর আশরাফুলের সাথে তার অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে এবং ঘটনার রাতে তার বাড়িতেই আশরাফুলের মুত্যু হয়। পুলিশের দাবি, সম্প্রতি খালেদা খাতুন আশরাফুলকে ছেড়ে অপর এক যুবকের সাথে পরকীয়ায় লিপ্ত হয়। তবে খালেদার দাবি আশরাফুলকে সে হত্যা করেনি। তবে তার (খালেদার) কারনেই সে আত্মহত্যা করেছে। এদিকে নিহতের স্ত্রী হামিদা আক্তার খালেদা খাতুনের নামে হত্যা মামলা দায়ের করায় তাকে আদালতের মাধ্যমে গত শনিবার জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। উল্লেখ্য গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার শ্যামকুড় ইউনিয়নের মুজগুন্নী গ্রামের মৃত আব্দুল কাদেরের পুত্র দুই সন্তানের জনক আশরাফুল পরকীয়ার টানে একই এলাকার মালয়েশিয়া প্রবাসী আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী এক সন্তানের মা খালেদা খাতুনের বাড়িতে যায়। পরদিন শুক্রবার সকালে থানা পুলিশের কাছে খবর আসে খালেদার বাড়ির পাশে আশরাফুলের লাশ পড়ে আছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে মণিরামপুর থানার ওসি মোকাররম হোসেনসহ একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠান। এ সময় স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান মনিসহ এলাকাবাসির মাধ্যমে পুলিশ জানতে পারে খালেদার সাথে আশরাফুলের পরকীয়ার সম্পর্ক ছিল। এ সময় পুলিশ প্রবাসীর স্ত্রী খালেদা খাতুনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

শেয়ার