আগামী নির্বাচনে আশাশুনিতে আ’লীগের আসন হাতছাড়া হওয়ার আশংকা

ফায়জুল কবীর, আশাশুনি (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি॥ আশাশুনিতে বহুল আলোচিত বেড়ীবাঁধ ও জনবহুল ঘোলার মেইন সড়কটি নির্বাচনের আগে সংস্কার না হলে সাতক্ষীরা আশাশুনি-৩ আসনটি ক্ষমতাসীন দলের হাত ছাড়া হতে পারে বলে জানিয়েছেন উপজেলার সর্বস্তরের জন সাধারন। সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে আশাশুনি বাসষ্ট্যান্ড হতে ঘোলা ত্রিমোহনী পর্যন্ত ২০কিলোমিটার জনবহুল মেইন রাস্তাটি ও কোলা, হাজরাখালী, বিছোট, দয়ারঘাট, জেলেখালী সহ বিভিন্ন স্থানে বেড়ীবাঁধ জরাজীর্ন অবস্থায় পড়ে রয়েছে। এ সকল কারনে সাধারণের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। আগামি জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে বেড়ীবাঁধও রাস্তা সংস্কার না হলে ক্ষমতাসীন দল থেকে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নিতে পারে বলে বিভিন্ন চায়ের স্টলে হাট বাজার গ্রামে আলোচনা চলছে। উল্লেখ্য চলতি অর্থ বছরে যেনতেন ভাবে রাস্তাটির কিছু অংশ সংস্কার হলেও বৃহত্তম অংশ বহুদিন যাবৎ পড়ে আছে। দূর্ঘটনা যেন রাস্তাটির নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে দেখা দিয়েছে। এর ফলে জনদূর্ভোগ চরমে দেখা দিয়েছে। কবে নাগাদ রাস্তাটি সংস্কার হবে তারও কোন সময়সীমা নেই। এ ব্যাপারে এলাকাবাসি জানান আশাশুনিতে অনেক উন্নয়ন হয়েছে কিন্তু বেড়ীবাঁধ ও চলাচলের রাস্তাটি সংস্কার হলে আমাদের কোন কিছু চাওয়া পাওয়া ছিল না। বর্ষা মৌসুম এলে আতঙ্কে দিন কাটাতে হয় কখন বেড়ীবাঁধ ভেঙ্গে যায়। এমন কোন বছর নেই এ সকল স্থান দিয়ে ২/১বার নদী ভেঙ্গে এলাকা প্লাবিত হয় না। প্রধানমন্ত্রী সাতক্ষীরা আইলাকবলিত উপজেলা পরিদর্শনে এসে টেকসই মজবুত বাঁধের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু কর্তৃপক্ষের অবহেলায় অদ্যবদি সেই প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি বলে তারা জানান। এদিকে সম্প্রতি সংসদ সদস্য অধ্যাপক আ.ফ.ম ডা: রুহুল হক তার নির্বাচনী এলাকা আশাশুনি পরিদর্শনে এসে এ সকল বেড়ীবাঁধ ও রাস্তাঘাটের বিষয়ে জনগনের প্রশ্নের সম্মখীন হলে তিনি বলেন সাতক্ষীরা হতে ঘোলা ত্রিমোহনী পর্যন্ত রাস্তা বরাদ্দ দিয়েছি। একনেকে অনুমোদন হলে রাস্তার কাজ শুরুহবে আর বেড়ী বাঁধের বিষয়ে কথা হলে তিনি বলেন বড় ্একটি প্রকল্প অনুমোদন নিয়ে টেইসই বেড়ী বাঁধ করতে হবে। অচিরেই বাঁধের বিষয়ে উপরি মহলের সাথে কথা বলে ব্যবস্থা নেব বলে তিনি জনগনকে আস্বস্থ করেন।

শেয়ার