নড়াইলে বুদ্ধি প্রতিবন্ধী যুবককে হত্যার ষড়যন্ত্র রুখে দিল পুলিশ

নড়াইল প্রতিনিধি ॥ নড়াইলের কালিয়ায় এলাকাবাসির সহযোগিতায় ও পুলিশের হস্তক্ষেপে সন্ত্রাসীদের হত্যা পরিকল্পনা থেকে রক্ষা পেলো বুদ্ধি প্রতিবন্ধী কাজের ছেলে মানিক শেখ (১৮)। আলোচিত তরিকুল হত্যা মামলার আসামি ও তাদের সহযোগীরা গাজীপুর জেলার আব্দুল্লাহপুরের কামারপাড়া থেকে আসা কালিয়া উপজেলার লোহারগাতি গ্রামের ছানাউল্লার বাড়ির কাজের ছেলে মানিককে হত্যা করে প্রতিপক্ষ তরিকুল হত্যা মামলার বাদি ও স্বাক্ষীদের ফাঁসানোর ষড়যন্ত্র করছিল বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। শনিবার সন্ধ্যায় উপজেলার নড়াগাতি থানা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নেয়।
পুলিশ ও এলাকাবাসি জানান, পাওনা টাকা চাওয়াকে কেন্দ্র করে গত ২৬ অক্টোবর সকালে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী হত্যা ও ডাকাতি মামলাসহ একাধিক মামলার আসামি কলাবাড়িয়া গ্রামের হাসমত তালুকদরের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা একই গ্রামের তরিকুল ইসলামকে প্রকাশ্য দিবালোকে কুপিয়ে হত্যা করে। ওই ঘটনায় হাসমত বাহিনীর ২৩ জনসহ আরও কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে নিহতের ভাই হবিবার শেখ নড়াগাতি থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তরিকুল হত্যাকান্ডের কয়েক দিনের মধ্যে হাসমত বাহিনী কলাবাড়িয়া গ্রামের (শিবপুর) নূর ইসলাম ওরফে নুড্যা ফকিরকে ও কলবাড়িয়া গ্রামের বৃদ্ধ রুস্তম খাঁকে হত্যা করে প্রতিপক্ষকে ফাঁসানোর পরিকল্পনা করে। ওইসব পরিকল্পনা ফাঁস হয়ে গেলে তারা গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নেয়। ২০১৩ সালে হাসমত ও তার সহযোগীরা হাসমতের বাড়িতে ডাল-রুটি খাওয়ার নাম করে তাদের দলীয় লোক কান্দুরী গ্রামের আবুল হোসেন নামে এক যুবককে গলা কেটে হত্যা করে হাসমতের প্রতিপক্ষ কান্দুরী গ্রামের ইলিয়াছ মেম্বরসহ তাদের দলীয় লোককে ফাঁসিয়ে দেয়। পরবর্তীতে ওই গ্রামের মজিবর মোল্যার পুত্র শিমুল পুলিশের হাতে ধরা পড়ে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিলে হাসমত বাহিনীর অপকর্মের কাহিনী বেরিয়ে আসে। জানা যায়, গাজীপুর জেলার আব্দুল্লাহপুরের কামার পাড়ার বাসিন্দা মমিন শেখের পুত্র মানিক শেখ কালিয়া উপজেলার নড়াগাতি থানার লোহারগাতি গ্রামের ছানাউল্লাহ তালুকদারের বাড়িতে প্রায় দেড় বছর আগে থেকে কাজের লোক হিসাবে কর্মরত রয়েছে। তরিকুল হত্যা মামলা ধামাচাপা দিতে হাসমত বাহিনীর লোকজন ওই কাজের ছেলে মানিককে হত্যা করে তরিকুল হত্যা মামলার বাদি পক্ষকে ফাঁসানোর পরিকল্পনা শনিবার দুপুরে ফাঁস হয়ে পড়লে হবিবার শেখ খবরটি নড়াগাতি থানার ওসিকে জানান। ওসি বেলায়েত হোসেনের নির্দেশে এস আই নজরুল ইসলাম ওইদিন সন্ধ্যায় অভিযান চালিয়ে লোহারগাতি গ্রাম থেকে মানিককে উদ্ধার করেন। উল্লেখ্য, ছানাউল্লাহ সন্ত্রাসী হাসমত তালুকদারের চাচাতো ভাইয়ের ছেলে। এবং তরিকুল হত্যা মামলার অন্যতম আসামী ইমলাক শেখের শ্যালক।
নড়াগাতি থানার ওসি বেলায়েত হোসেন বলেছেন, তরিকুল হত্যা মামলার আসামিরা বাদি পক্ষকে ফাঁসাতে মানিক নামের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী ছেলেটিকে হত্যা করতে পারে মর্মে সংবাদের ভিত্তিতে মানিককে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তার বাবা-মায়ের কাছে খবর পাঠানো হয়েছে। পরিবারের কাছে তাকে হস্তান্তর করা হবে।

শেয়ার