খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের দ্রুত বিচার দাবিতে যশোরে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ দুর্নীতির দায়ে অভিযুক্ত বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও অর্থ পাচারকারী হিসেবে অভিযুক্ত বিদেশে পলাতক বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে এনে আইনের আওতায় আনার দাবিতে যশোরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে ছাত্রলীগ। গতকাল জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয় থেকে জেলা ছাত্রলীগ ও সদর উপজেলা ছাত্রলীগ যৌথভাবে এই মিছিল বের করে। পরে শহরের চৌরাস্তা মোড়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে এর আগে গত ৭ ডিসেম্বর একই দাবিতে শহরের তিনটি কলেজে বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।
দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ছাত্রলীগের কয়েকশ’ নেতাকর্মী বিক্ষোভ মিছিলটি বের করে। মিছিলটি শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌরাস্তায় পৌঁছায়। সেখানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন যশোর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী ও সাধারণ সম্পাদক ছালছাবিল আহমেদ জিসান।
এসময় বক্তারা বলেন, ‘রাষ্ট্রক্ষমতায় দখল করে বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও তার পুত্র তারেক রহমান দুর্নীতি করে হাজার হাজার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছেন। তারা হাওয়া ভবন খুলে দেশকে দুর্নীতির শীর্ষে নিয়ে যান। এতিমদের টাকাও তারা আত্মসাত করেন। ইতিমধ্যে তারেকের পাঠানো টাকা বিদেশে ধরা পড়েছে। তাই বিদেশে পাচার হয়ে যাওয়া দেশে ফিরিয়ে আনতে হবে। একই সাথে এই কাজের সাথে জড়িত বেগম খালেদা জিয়াকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে। একই সাথে তার পুত্র তারেক রহমানকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে আইনের মুখোমুখি করতে হবে। তা না হলে এদেশের দেশপ্রেমিক ছাত্র-জনতা ঐক্যবদ্ধভাবে কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলবে।’
এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগের বিদায়ী কমিটির নেতা নুরুউল্লাহ খান লিখন, আরিফুর রহমান সাগর, আমিন মেহেদী, সদর উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সালাউদ্দিন কবির পিয়াস, শহর ছাত্রলীগের আহবায়ক মেহেদী হাসান রনি, মুমেল হোসেন, এমএম কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আল মামুন রনি, ইয়াসিন আরাফাত তরুন, সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহীন আলম, ছাত্রলীগ নেতা হৃদয়, আরিফ, অমি প্রমুখ।
এর আগে গত ৭ ডিসেম্বর যশোর সরকারি এমএম কলেজ, সরকারি সিটি কলেজ ও ডা. আব্দুর রাজ্জাক মিউনিসিপাল কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে। কলেজ ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এই বিক্ষোভ মিছিল আয়োজন করা হলেও সাধারণ শিক্ষার্থী কর্মসূচিতে অংশ নেন।

শেয়ার