নির্বাহী হাকিমদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে চান ডিসিরা

সমাজের কথা ডেস্ক॥ হাই কোর্ট অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করলেও নির্বাহী হাকিমদের মাধ্যমে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার পক্ষে বলেছেন জেলা প্রশাসকরা।
ডিসি সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন বুধবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত কার্য অধিবেশনে তারা এই অবস্থান জানালে তাতে সায় দেন মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলামও।

বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগের বিপরীত অবস্থানের মধ্যে গত ১১ মে দেওয়া এক রায়ে নির্বাহী হাকিম বা ম্যাজিস্ট্রেটদের দিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা অবৈধ ও অসাংবিধানিক ঘোষণা করে। তবে এই বিষয়টির চূড়ান্ত নিষ্পত্তি এখনও হয়নি।

জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে বৈঠকের পর সাংবাদিকরা ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার বিষয়ে মন্ত্রীকে প্রশ্ন রাখেন।

“ভ্রাম্যমাণ আদালত অব্যাহত রাখার বিষয়ে ডিসিদের পক্ষ থেকে লিখিত প্রস্তাব ছিল, এ বিষয়ে কোনো”- একজন সাংবাদিকের এই প্রশ্ন শেষ না করতেই সৈয়দ আশরাফ বলেন, “অবকোর্স।

“সরকার সব সময় অনেক বিষয় বিভিন্ন সংস্থা দেওয়া হয়, সেগুলো সরকার বিবেচনা করে, সে ব্যাপারে তারা সমাধান করে।”

প্রশাসনের কর্মকর্তাদের জাতিসংঘ মিশনে পাঠাতে ডিসিদের প্রস্তাব ছিল, সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়েছে কি না- এ প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে সৈয়দ আশরাফ বলেন, “লিখিত প্রেস ব্রিফিং দিয়ে জানানো হবে।”

ঢাকায় তিন দিনের সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন এই জেলা প্রশাসকরা ঢাকায় তিন দিনের সম্মেলনে অংশ নিচ্ছেন এই জেলা প্রশাসকরা
বিভাগীয় কমিশনার পদটি প্রথম শ্রেণি করার বিষয়ে বৈঠকে কোনো আলোচনা হয়নি বলে জানান তিনি।

বরগুনার ইউএনওকে নাজেহালের বিষয়ে বৈঠকে কেউ কোনো কথা বলেননি বলেও জানান মন্ত্রী আশরাফ।
সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, “(বরিশাল ও বরগুনা ডিসি) বদলি করা রুটিন কাজ।”

জেলা প্রশাসকদের জন্য রাজনৈতিক কোনো নির্দেশনা ছিল কি না- এক সাংবাদিক প্রশ্ন করলে আশরাফ বলেন, “এটা তো পলিটিক্যাল বিষয় না। যাদের সঙ্গে কথা বললাম, তারা সবাই সিভিল সার্ভেন্ট। তারা কোনো পলিটিক্যাল পার্টির না, সাংবাদিক কিংবা মিডিয়ারও না।”

 

শেয়ার