শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করত মালিক
বিদেশ ফেরত যশোরের এক তরুণী হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥ কর্মের সন্ধানে বিদেশে পাড়ি দিয়েছিলেন এক তরুণী (২৫)। কিন্তু মালিকের শারীরিক ও মানসিক নির্যাতনের কারণে সেখানে তিনি দু’মাসও টিকতে পারলেন না। গত বৃহস্পতিবার অসুস্থ্য শরীরে তিনি দেশে ফিরে শনিবার যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।
এ তরুণী যশোর নতুন উপশহর ই-ব্লক এলাকার বাসিন্দা। স্বামী জুয়েল কাজী ছয় বছর আগে তাকে ছেড়ে চলে যান। এরপর থেকে তিনি মার সাথে থাকতেন। বাসা বাড়িতে কাজ করে নিজের ও তিন বছরের মেয়ের জীবিকা নির্বাহ করে আসছিলেন।
তিনি জানান, শেখহাটি জামরুলতলা বরফকল এলাকার মিনা তাকে বিদেশে যাওয়ার জন্য উদ্বুদ্ধ করেন। তার কথামত তিনি ৫০ হাজার টাকা ম্যানেজ করে গত এপ্রিল মাসে ঢাকায় যান। সেখানে তিনি কাকরাইলে এয়ার ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সির কবির হোসেনের মাধ্যমে গত মে মাসের শেষের দিকে জর্ডানে যান। সেখানে তাকে একটি বাড়িতে কাজের মহিলা হিসাবে চাকরি দেওয়া হয়। বাড়িতে কাজের ফাকে মালিকের মনোরঞ্জন করতে রাজি না হওয়ায় বাড়ির মালিক প্রতিনিয়ত তাকে মারপিট করে নির্যাতন চালাতেন। এক পর্যায়ে তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ্য হয়ে পড়লে বেতন না দিয়ে মালিক তাকে বাংলাদেশে পাঠিয়ে দেন। গত বৃহস্পতিবার তিনি ঢাকায় আসেন এবং শুক্রবার বিকালে তিনি যশোরে পৌঁছান। শনিবার সকালে স্বজনরা তাকে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছেন। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের গাইনী ওয়ার্ডের মেঝেতে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
ডা. ববি বলেন, মারপিটের কারণে শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এছাড়াও শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়েছেন কি না সে ব্যাপারে আলামত নেওয়া হয়েছে। বর্তমানে তার শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে।