ত্রিভুজ সম্পর্কের জালে জড়িয়ে যশোরে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ত্রিভুজ সম্পর্কের জালে জড়িয়ে যশোরে ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দিয়ে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। মৃত আব্দুর রহমান উজ্জ্বল মৃধা (৪০) গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলার পোনা গ্রামের আব্দুল মান্নান মৃধার ছেলে। শনিবার ভোরে যশোর রেলওয়ে জংশনের দ্বিতীয় প্লাটফর্ম থেকে তিনি ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন। প্রবাসীর স্ত্রীকে বিয়ে, তালাক নিয়ে বিরোধের জের ধরে তিনি আত্মহত্যা করেছেন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।
নিহতের স্বজন ও হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, গোপলগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলা ফোকড়া গ্রামের বৃষ্টি নামে এক প্রবাসীর স্ত্রীর সাথে উজ্জ্বলের তিন বছর আগে প্রেমের সম্পর্ক সৃষ্টি হয়। এরপর তারা বিয়েও করেন। দীর্ঘদিন তারা একসাথে বসবাসও করেছেন। সর্বশেষ তারা যশোর শহরের আনসার ক্যাম্প পানির ট্যাংকি এলাকায় ছিলেন। তিনবছর পর এসে তাদের সম্পর্কে ভাঙ্গন দেখা দেয়। অপরদিকে, বৃষ্টির প্রবাসী স্বামীর দেশে ফেরার সময়ও ঘনিয়ে আসে। এর প্রেক্ষিতে গত ১৬ জুলাই বৃষ্টি উজ্জ্বল মৃধাকে তালাক দেয়। এ ঘটনার পর শনিবার ভোরে যশোর রেলওয়ে জংশনের দ্বিতীয় প্লাটফর্মে গিয়ে তিনি ট্রেনের নিচে ঝাঁপ দেন। ট্রেনে তার দু’পা কাটা পড়ে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
যশোর জিআরপি পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই ইদ্রিস আলী জানান, স্টেশনের তিন নম্বর লাইনে একটি মালবাহি ট্রেন খুলনার দিকে যাচ্ছিল। তখন ওই যুবক ঝাঁপ দিলে ট্রেনের নিচে পড়ে জখম হন। জিআরপি পুলিশ স্থানীয় লোকজনকে নিয়ে উজ্জ্বলকে উদ্ধার করে যশোর হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে তিনি মারা যান।
মৃত উজ্জ্বলের ভাই বাবুল মৃধা জানান, বৃষ্ট্ িনামের ওই মেয়ের সাথে বিয়ের পর তারা একসাথে সংসার করেছে। কয়েকদিন আগে তাদের মধ্যে ছাড়াছাড়ি হয়েছে। এরপর আমার ভাই (উজ্জ্বল) বিষ খেয়ে ট্রেনের নিচে পড়েছে বলে খবর পেয়ে যশোরে এসেছি। এখন তাকে বিষ খাইয়ে দিয়েছে, না সে বিষ খেয়েছে জানি না। ওই মেয়েরও কোনো খোঁজ পাচ্ছি না।

শেয়ার