যশোর ছাত্রলীগের আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব পেয়েছেন শাহী-জিসান

নিজস্ব প্রতিবেদক॥ আনুষ্ঠানিকভাবে যশোর জেলা ছাত্রলীগের দায়িত্ব পেয়েছেন রওশন ইকবাল শাহী ও ছালছাবিল আহমেদ জিসান। গত ১৯ জুলাই শাহীকে সভাপতি ও জিসানকে সাধারণ সম্পাদক করে এক বছরের জন্য জেলা ছাত্রলীগের দুই সদস্যের এই কমিটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসেন এই কমিটি অনুমোদন দেন। শুক্রবার কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ওয়েবসাইটে এমন একটি প্রতিবেদন আপলোড করা হয়েছে।
গত ১০ জুলাই জেলা ছাত্রলীগের ১৭তম বার্ষিক সম্মেলনে কাউন্সিলরদের ভোটে রওশন ইকবাল শাহী সভাপতি ও ছালছাবিল ইসলাম জিসান সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর স্থানীয় সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদ গ্রুপ কেন্দ্রে অভিযোগ করেন সভাপতি রওশন ইকবাল শাহী বিবাহিত। অভিযোগের সাথে কেন্দ্রে একটি কাবিননামও জমা দেওয়া হয়। অভিযোগ পেয়ে সত্যতা যাচাইয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটিসহ একাধিক গোয়েন্দা সংস্থা মাঠে নামে। শেষ পর্যন্ত কাবিননামাটি ভুয়া বলে প্রমাণিত হয়। পরে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি অবহিত করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে কেন্দ্রীয় কমিটি দুই সদস্যের যশোর জেলা ছাত্রলীগের এই কমিটি অনুমোদন দেয়।
প্রসঙ্গত, ১০ জুলাই যশোর শহরের ঈদগাহ ময়দানে জেলা ছাত্রলীগের ১৭তম সম্মেলনের প্রথম অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। বিকেলে পৌর কমিউনিটি সেন্টারে সম্মেলনের দ্বিতীয় অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। এতে ১২০ জন কাউন্সিলর ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সভাপতি পদে রওশন ইকবাল শাহী ১০৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী সাব্বির হোসেন লিমন পান ১৬ ভোট। আর সাধারণ সম্পাদক পদে ছালছাবিল আহমেদ জিসান ১০৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার প্রতিদ্বন্দ্বি তৌফিকুর রহমান পিয়াস পান ১৫ ভোট। পরে ভোট গণনা শেষে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ সভাপতি পদে শাহী ও সাধারণ সম্পাদক পদে জিসানকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একান্ত সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বদিউজ্জামান সোহাগ, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ। পরবর্তীতে শাহীর বিয়ের ভুয়া কাবিননামা কেন্দ্র অভিযোগ করা হয়। এনিয়ে বিভিন্ন মহলে তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়।

SHARE