কলারোয়ায় যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল স্কুলছাত্রীর

আব্দুর রহমান, কলারোয়া ॥ সাতক্ষীরার কলারোয়ায় যাত্রীবাহি বাসের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত ভ্যানের যাত্রী স্কুল ছাত্রী খাদিজা নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে ভ্যান চালকসহ আরও ৪ জন। রোববার দুপুর ২টার দিকে কলারোয়ার গোপিনাথপুর সরকারি প্রাইমারি স্কুল মোড়ে এই দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত খাদিজা খাতুন (১৪) সাতক্ষীরা সদর থানার ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্রী। সে সদর থানার ওয়ারিয়া গ্রামের রেজাউল ইসলামের মেয়ে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, যশোরগামী যাত্রীবাহি বাস (খুলনা মেট্রো-জ- ১১-০১৩৯) কলারোয়া অভিমুখী ভ্যানটিতে পিছন দিক থেকে ধাক্কা দেয়। এতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ভ্যানটি সড়কের পাশে একটি গাছে প্রচন্ড জোরে ধাক্কা খায়। এতে ছিটকে পড়ে ও বাসের চাকার আঘাতে মারাত্মক জখম হয় ভ্যানচালকসহ ৫ যাত্রীর সকলেই। আহত ভ্যানচালক কলারোয়ার বাটরা গ্রামের মৃত কছিম উদ্দিনের ছেলে মোজাম্মেল হোসেন (৫২), যাত্রী খাদিজা (১৪), রেহেনা (১৪), বাসন্তী(১৫) ও জ্যোতিকে (১৩) স্থানীয়রা উদ্ধার করে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে খাদিজাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সেখানে স্কুল ছাত্রী খাদিজা মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে কলারোয়া থানার এসআই অমিত দাশ সাংবাদিকদের খাদিজার মৃতুর খবর নিশ্চিত করে জানান, ঘাতক বাসটি পুলিশ জব্দ করেছে। তবে চালক পালিয়ে গেছে। আহত রেহেনা, বাসন্তী ও জ্যোতি এরা সকলেই ঝাউডাঙ্গা হাইস্কুলের ছাত্রী। এদের সবার বাড়ি সাতক্ষীরা সদর থানার ওয়ারিয়া গ্রামে।

 

শেয়ার