মুরগির মাংসে উচ্চমাত্রার আর্সেনিক

সমাজের কথা ডেস্ক॥ পাকিস্তানের করাচি শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে সংগ্রহ করা মুরগীর মাংসে উচ্চমাত্রার আর্সেনিকের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। ২০০১ সাল থেকে শহরের বিভিন্ন স্থানে গ্যাসোলিনের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে খাবারের মধ্যে এর প্রয়োগ বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না।

তিন বছর ধরে খাবারে আর্সেনিকের প্রয়োগ নিয়ে গবেষণায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উঠে এসেছে। সোমবার আগা খান বিশ্ববিদ্যালয়ের (একেইউ) একটি সেমিনারে এসব তথ্য জানানো হয়।
একেইউ-এর কমিউনিটি হেলথ সাইন্সের (সিএইচএস) একটি গবেষণা দল ওই সেমিনারের আয়োজন করে। তারা ভারি পদার্থ, খাদ্য, নিরাপত্তা এবং শিশু উন্নয়নের বিভিন্ন দিক সম্পর্কে তুলে ধরেন। জাপানের জিছি মেডিকেল ইউনিভার্সিটি ওই গবেষণায় সহযোগিতা করেছে।
ওই গবেষণা থেকে জানা গেছে, আর্সেনিক সদ্যজাত শিশু এবং গর্ভবতী মায়েদের স্বাস্থ্যের ব্যাপক ক্ষতি সাধন করে। পাকিস্তানের করাচি এবং গামবাতে ওই গবেষণা চালানো হয়েছে।

শেয়ার