যশোরে মাছ ব্যবসায়ী সুমন হত্যা ৭ জনের নামে মামলা, আসামি আটক নেই

jesনিজস্ব প্রতিবেদক ॥ যশোরে মাছ ব্যবসায়ী সুমন হোসেন খুনের ঘটনায় মামলা হয়েছে। নিহতের পিতা শহরের খালধার রোড নিকারী পাড়ার আবু হানিফ বাদী হয়ে শনিবার কোতোয়ালি মডেল থানায় ৭ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরো ৪/৫ জনের বিরুদ্ধে এ মামলা করেন।
আসামিরা হলো, পশ্চিম বারান্দীপাড়া কদমতলার মৃত শামসুর রহমানের দুই ছেলে পলাশ ও লিটন, শরবত আলীর ছেলে নাহিদ, খালধার রোড নিকারী পাড়ার ইবাদ আলীর ছেলে রাব্বি, হাজী সালাউদ্দিনের ছেলে আক্তার, একরাম আলীর ছেলে আফসার আলী, পূর্ব বারান্দীপাড়া বিশ্বাস বাড়ির মোকছেদ আলীর ছেরে সজল।
জানা গেছে, পূর্বশত্রুতার জের ধরে আসামিদের সাথে মাছ ব্যবসায়ী সুমনদের বিরোধ চলে আসছিল। এরই সূত্র ধরে গত শনিবার বিকেলে সুমনের ভাই শুভকে মারপিট করার জন্য ধাওয়া করে আসামিরা। তাদের ধাওয়ায় শুভ বাড়িতে চলে গেলে তারা বারান্দীপাড়া কদমতলা টগরের চায়ের দোকানের সামনে অবস্থান করে। সন্ধ্যা সোয়া ৬টার দিকে সুমন বাড়ি থেকে বড় বাজারের উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে টগরের চায়ের দোকানের সামনে এলে ওই সন্ত্রাসীরা সুমনকে এলোপাতাড়ি কিলঘুষি মারে। পলাশের হাতে থাকা পিস্তল দিয়ে সুমনকে গুলি করা হয়। খবর পেয়ে বাড়ি থেকে লোকজন এসে সুমনকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।
এদিকে এঘটনায় মামলা হলেও কোন আসামিকে আাটক করতে পারেনি পুলিশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আমির হোসেন জানিয়েছেন, আসামিদের আটক এবং হত্যা রহস্য উদঘাটনে চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার