কয়রায় আইন-শৃংখলা পরিস্থিতির উন্নতি

কয়রা (খুলনা) প্রতিনিধি॥ কয়রা থানার বর্তমান অফিসার ইনচার্জ যোগদানের মাত্র ৫ মাসেই বদলিয়ে দিয়েছেন উপজেলার চিত্র। কয়রা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে পুলিশী তৎপরতা জোরদার থাকায় অতীতের তুলনায় অপরাধ কর্মকান্ডের সংখ্যা এখন অনেক কম। এক সময় যেখানে বনদস্যুরা লোকালয়ে প্রবেশ করে গ্রামের নিরীহ মানুষকে জিম্মি করে মুক্তিপন আদায় সহ সর্বস্ব লুটে নিত। বর্তমানে আইন শৃংখলা ভাল হওয়ায় সে দৃশ্যপট পাল্টে গেছে। গত কয়েক মাসে পুলিশের অভিযানের মুখে ভয়ংকর দাগী অপরাধীরা এলাকা ছাড়া হওয়ায় আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি দেখা দিয়েছে। কয়রা থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ শমসের আলি গত ২ জুন দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকে চোর,ডাকাত, মাদক,বনদস্যু,জঙ্গী,ও নাশকতা সৃষ্টিকারীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনা করেন। তারই ধারাবাহিকতায় লোকালয় থেকে ৩০ জনের বেশি ডাকাত ও বনদস্যু গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ এবং বিপুল পরিমান মাদকদ্রব্য উদ্ধার করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে ১৪ টি,ও অস্ত্র আইনে ৭ টি মামলা দেওয়ায় অপরাধিদের তৎপরতা নেই বললেই চলে। এ ছাড়াও পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে বনদস্যু, জঙ্গি, চোর,ডাকাত, মাদক দ্রব্য বিক্রেতা, মাদক সেবনকারী ও নাশকতা সৃষ্টিকারীদের গ্রেফতার করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে। সেই সাথে সুন্দরবনে একের পর এক অভিযানে  দস্যুবৃত্তিতে লিপ্ত থাকা বাহিনী গুলির সদস্য ও বাহিনী প্রধানরা পুলিশের  ক্রস ফায়ারে ৩ জন নিহত হয়েছেন।  উদ্ধার কয়েছে দেশি বিদেশি আগ্নেয়াস্ত্র গুলি, বোমা, রামদাঁ, মাদকদ্রব্য, গাজা ইয়াবা ও জেহাদী বই। প্রকৃত বনদস্যুদের এ ভাবে কুপোকাত করতে সাহসী পদক্ষেপ গ্রহন করায় ওসি শেখ শমসের আলিকে উপজেলার সকল শ্রেনী পেশার মানুষ সাধুবাদ দিয়েছেন। এদিকে নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগে উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে শতাধিক জামায়াত শিবির নেতা কর্মীকে আটক করে তাদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে থানা অফিসার ইনচার্জ জানিয়েছেন। থানা পুলিশের নিয়মিত টহলদলের সাথে ৫টি পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত পুলিশ সদস্যরা প্রত্যন্ত গ্রামগুলোয় সার্বক্ষনিক টহল জোরদার করায় সুন্দরবন সংলগ্ন লোকালয়ে বনদস্যুদের দৌরাত্ব উল্লেখযোগ্য ভাবে কমে গেছে। আইন শৃংখলা পরিস্থিতির এই উন্নতি হওয়ায় সাধারণ মানুষ ও জেলে বাওয়ালীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। এ ছাড়া ওসি শেখ শমসের আলি যোগদানের পর থেকে থানায় দালালদের দৌরাত্ম নেই বললেই চলে। তাছাড়া নিয়মিত মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামী গ্রেফতার ছিল অতীতের তুলনায় অনেক বেশি।

শেয়ার