সুন্দরবন ইস্যুতে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত মানছে না যশোর ওয়ার্কার্স পার্টি

sundorbonনিজস্ব প্রতিবেদক॥ জাতীয় কমিটির সাথে সুন্দরবন ইস্যুতে আন্দোলনে না থাকার বিষয়ে কেন্দ্রের সিদ্ধান্ত মানছে না যশোর জেলা ওয়ার্কার্স পার্টি। পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশার বিবৃতি দেওয়ার পরদিন জেলার নেতারা বৈঠক করে আন্দোলনে থাকার সিদ্ধান্ত নেন। একই সাথে ওই বিবৃতির ‘অসংগতি’র দিক তুলে ধরে কেন্দ্রের কাছে চিঠি দেওয়া হয়েছে।
দলীয় সূত্রে জানা যায়, রামপালে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছে তেল, গ্যাস, বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি। বিভিন্ন দলের সমন্বয়ে গড়া এই কমিটির শরিক দল হিসেবে ওয়ার্কার্স পার্টিও ঘোষিত কর্মসূচিতে অংশ নেয়। জাতীয় কমিটি ঘোষিত আগামী ২৪ নভেম্বর থেকে ২৬ নভেম্বর ‘চল চল ঢাকায় চল, সুন্দরবন রক্ষা কর’ কর্মসূচি রয়েছে। এই কর্মসূচি সফল করতে ইতোমধ্যে জাতীয় কমিটির পক্ষ থেকে একটি লিফলেট ছাড়া করা হয়েছে। এই লিফলেটের একটি বক্তব্যকে ‘সত্য নয়’ দাবি করে গত ১৯ নভেম্বর চল চল ঢাকায় চলো কর্মসূচি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নেন ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা। একই সাথে দলটির তৃণমূলের নেতাকর্মীদের এই কর্মসূচিতে অংশ না নেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি। তবে তার এই নির্দেশনা মানছে না যশোরের নেতাকর্মীরা। তারা ২০ নভেম্বর রাতে দলীয় কার্যালয়ে এক বৈঠক করে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলনে নামার সিদ্ধান্ত নেন। একই সাথে জেলা থেকে চারটি পয়েন্টে সুনির্দিষ্ট বক্তব্য কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে। সেই চিঠিতে আন্দোলনে না থাকার বিষয়ে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তা যথাযথভাবে হয়নি বলে দাবি করা হয়েছে।
দলটির মধ্যম সারির এক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান, জেলা কমিটির এই সিদ্ধান্তে সাথে একমত নন ফজলে হোসেন বাদশার অনুসারী জেলা সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান ভিটু। এজন্য তিনি সাত দিনের ছুটি নিয়ে বর্তমানে যশোরের বাইরে অবস্থান করছেন।
জেলার একাধিক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে দলীয় কার্যালয়ে বৈঠক হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন। তবে এ ব্যাপারে যোগযোগ করা হলে কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য ও যশোর জেলা শাখার সভাপতি ইকবাল কবির জাহিদ।

শেয়ার