সংবাদ সম্মেলন ডেকে ‘মৃত’ চিকিৎসক জানালেন তিনি জীবিত

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ভারতের এক চিকিৎসক তার ক্লিনিকে সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে ঘোষণা করেছেন যে, তিনি জীবিত ও সুস্থ আছেন।
আয়কর বিভাগের তল্লাশি অভিযান চালাতে ওই চিকিৎসকের বাড়িতে হানা দিয়েছে এবং এরপর তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন বলে গুজব ছড়িয়ে পড়েছিল।
বিহারের ছাপরা জেলার বাসিন্দা ৬৫ বছর বয়সী ডা. আরবি সিনহা বিবিসি’কে বলেন, “আমার মান-সম্মান সব নষ্ট করে দিয়েছে এ গুজব।”
মঙ্গলবার স্থানীয় কয়েকটি গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, ডাক্তার সিনহার বাড়িতে আয়কর বিভাগের কর্মীরা অভিযান চালিয়ে ছয় কোটি রুপি অবৈধ অর্থ জব্দ করেছে।
সিনহা বিবিসি’কে বলেন,  “এটি পুরোপুরি ভুয়া খবর। স্থানীয় একটি চ্যানেল থেকে আমার বাড়িতে তাদের একজন রিপোর্টার এবং একজন ক্যামেরাম্যান পর্যন্ত পাঠিয়ে দেয় এবং তারা বাড়ির বাইরে থেকে কিছু ভিডিও করে। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ খবর দাবানলের মত ছড়িয়ে পড়ে।”
“অভিযানের কারণে আমি হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মারা গেছি- এই গুজব ছড়িয়ে পড়ার পর পরিস্থিতি আরও খারাপ হয়ে যায়। এ কারণে আজই আমি আমার ক্লিনিকে একটি সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেছি। যেখানে আমাকে বলতে হচ্ছে যে আমি বেঁচে আছি এবং সুস্থ আছি। আমার বাড়িতে আয়কর বিভাগের কোনও অভিযান হয়নি।”

ভুয়া খবর প্রকাশের জন্য তিনি স্থানীয় দুইটি চ্যানেল ও একটি নিউজ সাইটের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করেছেন বলেও জানান।
দুর্নীতি ও ব্ল্যাকমানির বিরুদ্ধে যুদ্ধের অংশ হিসেবে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর রুপির সবচেয়ে বড় দুইটি নোট অচল ঘোষণার পর এক সপ্তাহের বেশি সময় ধরে দেশটিতে অর্থ সংক্রান্ত নানা বিশৃঙ্খলা চলছে।
অসুস্থ হয়ে কয়েকজনের মৃত্যু এমনকি আত্মহত্যা করার ঘটনার খবরও পাওয়া গেছে।
পুরাতন ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট অচল ঘোষণার পর পুরাতন নোট পরিবর্তন এবং আয়কর বিভাগের অভিযান সংক্রান্ত ঘটনায় এখন পর্যন্ত ভারতে ৩৩ জনের বেশি মানুষ মারা গেছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলোতে খবর প্রকাশ করা হয়েছে।
এদের মধ্যে মধ্যে কেউ কেউ রুপি পরিবর্তনের লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার সময় অসুস্থ হয়ে মারা গেছেন, আবার কেউ নগদ অর্থের অভাবে হাসপাতালের বিল জমা করতে না পারায় বিনা চিকিৎসায় মারা গেছেন বলেও জানা গেছে।

শেয়ার