‘কোহিনুর চুরি হয়নি, ব্রিটেনকে উপহার দেওয়া হয়েছিল’

kohinur
সমাজের কথা ডেস্ক॥ কোহিনূর হীরা চুরি যাওয়া নিয়ে ভারতীয়দের যে বদ্ধমূল ধারণা ছিল তাতে ছেদ টেনেছে সরকার। সুপ্রিম কোর্টকে ভারত সরকার বলেছে, চুরি নয়, পাঞ্জাবের মহারাজা দুলীপ সিং ব্রিটিশদেরকে উপহার দিয়েছিলেন এ হীরা।
ব্রিটেনের রানীর মুকুটে বসানো বিশ্বের সবচেয়ে উজ্জ্বল হীরা কোহিনূর ভারতে ফিরিয়ে নিতে জনস্বার্থে অল ইন্ডিয়া মানবাধিকার কমিশন এবং সোশ্যাল জাস্টিস ফ্রন্ট্রের করা এক মামলার শুনানিতে সোমবার সলিসিটর জেনারেল রণজিৎ কুমার সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের অবস্থান তুলে ধরে একথা জানান।

কোহিনূর ফিরিয়ে আনার বিষয়ে সরকার কী ভাবছে? মামলার ভিত্তিতে সুপ্রিম কোর্ট কেন্দ্রের কাছে এর জবাব চেয়ে পাঠানোর পর ওই শুনানি হয়।
কোর্টে হাজির হয়ে রণজিৎ কুমার বলেন, ১০৫ ক্যারাটের হীরাটি ব্রিটেনের ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানিকে দিয়েছিলেন পাঞ্জাবের মহারাজা দুলীপ সিং।
ঘটনাটির ব্যাখ্যায় ‘দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া’ জানিয়েছে, ঘটনাচক্রে ১৮৫০ সালে পাঞ্জাবের ব্রিটিশ গভর্নর জেনারেল মার্কুইস অব ডালহৌসি পাঞ্জাবের মহারাজা দুলীপ সিং কে কোহিনুর হীরা রানি ভিক্টোরিয়াকে ‘উপহার’ হিসাবে দিতে বাধ্য করেছিলেন।
কোহিনূরের ব্যাপারে ভারতের পররাষ্ট্র বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অবস্থান কি তা এখনও জানা যায়নি বলেও সোমবার আদালতকে জানিয়েছেন রণজিৎ।
জগদ্বিখ্যাত এ হীরাটি একসময় ছিল ভারতের গর্ব। তখন ভারত ছিল ভারতবর্ষ। তারপর একের পর এক বিদেশি শক্তির হানায় হীরা কোহিনূর নানা হাত ঘুরে চলে যায় ব্রিটেনে।
ভারতের বিভিন্ন মহল দীর্ঘ দিন ধরেই কোহিনূর ফেরত দেওয়ার জন্য যুক্তরাজ্যের কাছে দাবি জানিয়ে আসছে। হীরাটি ফিরিয়ে আনতে চেয়ে একাধিক মামলাও হয়েছে।
ভারতীয় ব্যবসায়ী, শিল্পপতি ও বলিউড তারকারা কোহিনূর ফেরত পেতে লন্ডন হাইকোর্টে মামলার উদ্যোগ নেন। মামলা হয় ভারতের সুপ্রিম কোর্টেও। কিন্তু ব্রিটিশ সরকার ২০১৩ সালে কোহিনূর ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানায়।

শেয়ার