প্রতিবাদ সভায় যশোরের বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ॥ যশোরের ইতিহাসে পুলিশের ন্যাক্কারজনক এমন কাজ কখনো দেয়া যায়নি

sova
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর কোতোয়ালি থানা ও এসপি কার্যালয়ের ক্রাইমবোর্ডে রাইটস যশোর-এর নির্বাহী পরিচালক বিনয় কৃষ্ণ মল্লিকের ছবি প্রদর্শন এবং শহরের গাড়িখানা রোডের ইজারাপ্রাপ্ত সরকারি সম্পত্তি থেকে ৪০টি পরিবার ও ব্যবসায়ীদের উচ্ছেদের প্রতিবাদে এক সভা শনিবার সন্ধ্যায় রাইটস যশোর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের জেলা সাধারণ সম্পাদক অশোক কুমার রায়ের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় যশোরের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও পেশাজীবী সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন।
সভায় বক্তারা যশোরের পুলিশ সুপারের কার্যক্রমকে বেআইনি, মানবাধিকার ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিরোধী অভিহিত করে বলেন, যশোরের ইতিহাসে পুলিশের এমন ন্যাক্কারজনক কাজ কখনো দেয়া যায়নি। এটার প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ দুটোই করতে হবে।
বক্তারা যশোর পুলিশ সুপারের সাম্প্রতিক কার্যক্রমকে বেপরোয়া আখ্যায়িত করে বলেন, তাকে বুঝিয়ে দিতে হবে তিনি আইনের লোক হয়ে বেআইনি কাজ করতে পারেন না, যা ইচ্ছা তাই করতে পারেন না। শুধু তাই নয়, যশোরের মাটিতে এরকম অন্যায়-অত্যাচার করে যে কেউ পার পেতে পারে না সেটাও তাকে বুঝিয়ে দিতে হবে।
সভা থেকে পুলিশ সুপারের হয়রানিমূলক আচরণ ও জবরদখলের প্রতিবাদে আগামীকাল ১১ এপ্রিল বিকেল চারটায় দড়াটানা ভৈরব চত্বরে গণঅবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করা হয় এবং পহেলা বৈশাখের পর বৃহত্তর কর্মসূচির ঘোষণা দেয়া হয়।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল বাসদ মার্কসবাদী-এর যশোর জেলা সমন্বয়কারী হাসিনুর রহমান, সিপিবি যশোর জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল হোসেন, কমিউনিস্ট লীগ যশোর জেলা সাধারণ সম্পাদক তসলিমুর রহমান, জাসদ যশোর জেলা যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবুল কায়েস, বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি যশোর জেলা সাধারণ সম্পাদক গাজী গোলাম মোস্তফা, মহিলা পরিষদ যশোর জেলা সাধারণ সম্পাদক তন্দ্রা ভট্টাচার্য্য, অধ্যাপক সন্তোষ হালদার, সুসমাজ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক নবী নওয়াজ মো. মুজিবুদ্দৌলা সরদার কনক, আইইডি-এর বীথিকা সরকার, আইনজীবী ও মানবাধিকার কর্মী অ্যাডভোকেট তাহমিদ আকাশ, সুপ্র নেতা আব্দুল লতিফ, এডাব যশোরের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান নান্নু, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর যশোর জেলা সভাপতি পলাশ বিশ্বাস।

শেয়ার