পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণের দাবিতে ঝিকরগাছা থেকে অপহৃত শিশু মণিরামপুরে উদ্ধার, আটক ২

opohoroner por uddhar
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবিতে ফয়সাল হোসেন লিমন (৮) নামে এক শিশুকে অপহরণের দু’দিন পর তাকে উদ্ধার করেছে র‌্যাব। এসময় দুইজন অপহরণকারীকে আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার ঝিকরগাছার স্বরণপুর গ্রামের নানা বাড়ি থেকে অপহরণের পর বৃহস্পতিবার দুপুরে মণিরামপুর থেকে ওই শিশুকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত শিশু ফয়সাল ঝিকরগাছা উপজেলার হাড়িয়াদেয়ারা গ্রামের মন্টু মিয়ার ছেলে।
আটককৃত দু’জন হলেন, যশোর শহরের বারান্দিপাড়া এলাকার বিল্লাল হোসেনের ছেলে সাগর শেখ (৩৫) এবং মণিরামপুরের মথুরাপুর গ্রামের আলাউদ্দিন গাজীর ছেলে মিজানুর রহমান মিন্টু (৩৬)।
র‌্যাব-৬ যশোর ক্যাম্পের কমান্ডার মেজর আব্দুল্লাহ আল মেহেদি জানান, মঙ্গলবার ভোররাতে সাগরসহ একদল দুর্বৃত্ত ঝিকরগাছা উপজেলার স্বরণপুর গ্রামে শিশু ফয়সালের নানা আনসার আলী বিশ্বাসের বাড়িতে হানা দেয়।
এরপর ওই দুর্বৃত্তরা অস্ত্রের মুখে ফয়সালকে তুলে নিয়ে যায়। পরে তার পিতা মন্টু মিয়ার কাছে ৫ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। এছাড়া তাকে বিভিন্নস্থানে ঘুরে নিয়ে বেড়ায়। এ ঘটনায় মঙ্গলবার ফয়সালের পিতা মন্টু মিয়া র‌্যাব ক্যাম্প যশোরে লিখিত অভিযোগ দেন। এর প্রেক্ষিতে র‌্যাব সদস্যরা ওই দুর্বৃত্তদের মোবাইল ফোন ট্রাক করে তাদের অবস্থান ও অনুসন্ধান করে। এক পর্যায়ে বৃহস্পতিবার ভোরে সদর উপজেলার রূপদিয়া এলাকার ঈগল ফিলিং স্টেশনের সামনে থেকে সাগর শেখকে আটক করে। এরপর সাগরের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে দুপুরের দিকে র‌্যাব অভিযান চালায় মণিরামপুরের মথুরাপুর গ্রামে। এ সময় র‌্যাব মিজানুর রহমান মিন্টুর বাড়ি থেকে শিশু ফয়সালকে উদ্ধার এবং মিন্টুকে আটক করে। উদ্ধারকৃত শিশু ও আটক দু’অপহরণকারীকে রাতে মণিরামপুর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।
এব্যাপারে অপহৃত শিশু ফয়সালের বড় ভাই রানা হোসেন ইমন বলেন, তার পিতা মন্টু মিয়ার দ্বিতীয় স্ত্রী জেসমিন বেগম অপহরণকারী সাগরের প্রথম স্ত্রী ছিল। সেখান থেকে সাগরের সাথে তাদের পরিচয়। কিছু দিন আগে জেসমিন বেগম আবারো সাগরের বাড়িতে চলে যায়। এরপর সাগর টাকা হাতিয়ে নেয়ার জন্যই তার ভাই ফয়সালকে অপহরণ করে।
ফয়সাল নানা বাড়ি এলাকার স্বরণ পুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে দ্বিতীয় শ্রেণিতে লেখাপড়া করে।

শেয়ার