ফেঁসে যাচ্ছেন খোকাসহ প্রশাসকরা

khoka
সমাজের কথা ডেস্ক॥ অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার বিরুদ্ধে অনিয়মের সত্যতা পেয়েছে সংসদীয় স্থায়ী কমিটি। একই সঙ্গে বিভক্ত উত্তর-দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রশাসকদের বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছে কমিটি। এছাড়া ঢাকা ওয়াসার কার্যক্রমে কমিটির অসন্তোষ, জবাব দিতে ওয়াসার এমডিকে দশদিনের সময় দিয়েছে কমিটি।
রোববার (০৩ এপ্রিল) জাতীয় সংসদ ভবনে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এসব অভিযোগ উত্থাপন করা হয়। কমিটিতে উত্থাপিত অভিযোগে বলা হয়েছে, সাদেক হোসেন খোকা দায়িত্ব পালনের সময় সিটি করপোরেশনের দোকান, খালি জায়গা বরাদ্দ, ভবন নির্মাণ ও দরপত্র আহ্বানে অনিয়ম করেছেন।
বৈঠকে শেষে কমিটি সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা জানান, শুধুমাত্র সাদেক হোসেন খোকাই না, অনির্বাচিত যে সকল সরকারি কর্মকর্তারা (প্রশাসক) দায়িত্বে ছিলেন তাদের বিরুদ্ধেও বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। সকল অভিযোগ আমরা তদন্ত করছি। তাতে দেখা গেছে, খোকা দায়িত্বে থাকাকালে দোকান বরাদ্দসহ নানা ক্ষেত্রে অনিয়ম করেছেন। একই সঙ্গে সিটি করপোরেশন বিভক্ত হওয়ার পর দক্ষিণের ৪০ জন এবং উত্তরের ৪২ জন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব কর্মকর্তারা ট্যাক্স আদায়ের ক্ষেত্রে অনিয়ম করেছেন। তাদের কারো কারো বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে, শাস্তিও হয়েছে কয়েকজনের।
বাদশা জানান, তবে আমরা খোকার বিরুদ্ধে উত্থাপিত সকল অভিযোগ খতিয়ে দেখতে আইনজীবীদের একটি প্যানেলের কাছে পাঠিয়েছি। তারা দেখে যে সুপারিশ করবে, সে অনুযায়ী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
তিনি জানান, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির নবম বৈঠকে ২০১৫ সালের জুন মাসে বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার সময়কালের কর্মকান্ড তদন্তের জন্য মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করে সংসদীয় কমিটি।
সংসদীয় কমিটি সূত্রে জানা গেছে, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আকরাম আল হোসেনকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করে মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয়ের ওই তদন্ত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ঢাকা সিটি করপোরেশনের আওতাধীন বিভিন্ন মার্কেটে ২৬টি দোকান ও খালি জায়গা বরাদ্দের ক্ষেত্রে কোনো নিয়ম মানা হয়নি। ওই সব স্থান বরাদ্দের জন্য সাবেক মেয়র খোকা সুপারিশ করেছেন। এসব জায়গা ও দোকান বরাদ্দের কারণে চলমান মামলার জন্য সিটি করপোরেশনের অনেক আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে। কমিটির সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য মো. রহমত আলী, ফজলে হোসেন বাদশা এবং রহিমা আকতার বৈঠকে অংশ নেন।

শেয়ার