৩০ মণ গমে গণধর্ষণের আপোষরফা!

dhorshon
সমাজের কথা ডেস্ক॥ গণধর্ষণের আবার ক্ষতিপূরণ হয়? গ্রাম্য সালিশে তো অনেক সময় কিছু টাকা বা কখনো ধর্ষকের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে ফয়সালা করা হয়।
তবে পাকিস্তানের সিন্ধু প্রদেশে ঘটলো আরেক লজ্জাজনক ঘটনা। গণধর্ষণের মামলার আপোষরফা হলো ৩০ মণ গমের বিনিময়ে।
প্রদেশের উমরকোটের গুলাম নবি শাহ এলাকায় ঘটেছে এমন ঘটনা। গণধর্ষণের শিকার ১৪ বছরের কিশোরীর ভাই মামলা করেছিলেন। মেয়েটির বাবার অভিযোগ, মূল অভিযুক্ত গ্রেপ্তারও হয়েছিল। কিন্তু এরপরই সক্রিয় হয় জিরগা বা স্থানীয় সালিশি মাতব্বররা। ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৩০ মণ গম নিয়ে মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়া হয়। অবশেষে স্থানীয় এক প্রভাবশালী সমাজপতির সভাপতিত্বে সালিশ বৈঠক হয়।
সালিশের প্রস্তাব মানতে রাজি না হওয়ায় পরিবার নিয়ে গ্রাম ছেড়ে যেতে বলা হয় বলে অভিযোগ করেন তিনি।

পাকিস্তানি দৈনিক ডন জানিয়েছে, মিরপুরখাস এর ডিজিপি জাভেদ আলম ওধো ঘটনাটির কথা জেনে উমরকোটের পুলিশ সুপারকে তদন্ত করার পাশাপাশি মেয়েটির পরিবারের পূর্ণ নিরাপত্তার ব্যবস্থা করতে বলেন।
স্থানীয় পুলিশ সূত্রে জানা যায়, পাকিস্তান দণ্ডবিধির কয়েকটি ধারায় মামলা রুজু করে মূল অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের আদালত জিরগা বেআইনি ঘোষণা করেছে অনেকদিন আগেই। কিন্তু প্রত্যন্ত অঞ্চলে এদের প্রভাব এখনো বলবৎ আছে।

শেয়ার