যশোর জেলা আওয়ামী লীগের প্রতিবাদ সমাবেশে নেতৃবৃন্দ॥ জেলা আওয়ামী লীগকে দুর্বল করতে শাহীন চাকলাদারের নামে মিথ্যা মামলা করেছে এসপি

sahi
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের নামে মামলার প্রতিবাদে আয়োজিত সমাবেশে নেতৃবৃন্দ বলেছেন, দলকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে যশোরের পুলিশ সুপার চক্রান্ত করছেন। দীর্ঘদিন ধরে তিনি ঐক্যবদ্ধ জেলা আওয়ামী লীগে ভাঙন ধরাতে তৎপর রয়েছেন। তারই ধারাবাহিকতায় নির্বাচন কমিশনের কাছে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের নামে মিথ্যা তথ্য সরবরাহ করে বিভ্রান্ত করেছেন। তার নামে কৌশলে মামলা করিয়েছেন। কিন্তু এভাবে চক্রান্ত করে শাহীন চাকলাদার তথা যশোর জেলা আওয়ামী লীগের রাজনীতিকে দুর্বল করা যাবে না। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করা পর্যন্ত যশোর আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ঘরে ফিরবে না। প্রয়োজনে কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদারের নামে নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে পুলিশি মামলার প্রতিবাদে গতকাল শনিবার এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত প্রতিবাদ সমাবেশে হাজার হাজার নেতাকর্মীরা অংশ নেন। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার না করলে কঠোর হুশিয়ারি দেন। সমাবেশে সভাপতিত্বে করেন সাবেক সংসদ সদস্য জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি পিযুষ কান্তি ভট্টাচার্য্য। প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুল মজিদ। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ আলী রায়হান, একেএম খয়রাত হোসেন, মোশাররফ হোসেন, আব্দুল কাদির, মীর জহুরুল ইসলাম, যশোর পৌরসভার মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু, জেলা যুবলীগ সভাপতি মোস্তফা ফরিদ আহমেদ চৌধুরী, আওয়ামী লীগ নেতা ও প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা আজিজুল আলম মিন্টু প্রমুখ।
আওয়ামী লীগ নেতা মাহমুদ হাসান বিপুর পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে আওয়ামী লীগ নেতা মোফাজ্জেল হোসেন খসরু, এসএম আফজাল হোসেন, আসিফ-উদ-দৌল্লা সরদার অলক, ইমাম হোসেন লাল, শাহারুল ইসলাম, জেলা মহিলা আওয়ামী লীগ সভাপতি নুরজাহান ইসলাম নীরা, জেলা যুবলীগের সহসভাপতি সৈয়দ মেহেদী হাসান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আজাহার হোসেন স্বপন, জেলা যুবমহিলা লীগের সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, সাধারণ সম্পাদক পৌর কাউন্সিলর শেখ রোকেয়া পারভীন ডলি, জেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আরিফুল ইসলাম রিয়াদ, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, সহ-সভাপতি নিয়ামত উল্লাহ, রবিউল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহাজাহান কবির শিপলু প্রমুখ। এছাড়া যশোর সদর উপজেলার নবনির্বাচিত ইউপি চেয়ারম্যান, পৌরসভার আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, পৌরসভার বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রতিবাদ সমাবেশে বক্ত্যরা বলেন, যশোরে এসেই পুলিশ সুপার জেলা আওয়ামী লীগকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে নানা চক্রান্ত করছেন। বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের আটক করে হয়রানি করা হয়েছে। দেওয়া হয়েছে মিথ্যা মামলা। ঐক্যবদ্ধ আওয়ামী লীগকে দ্বিধাবিভক্ত করতে তিনি এই অপতৎপরতায় নেমেছেন। তারই অংশ হিসেবে ৩০ মার্চ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারসহ তিন নেতার বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে মামলা করার কথা বলা হলেও চক্রান্ত করেছেন পুলিশ সুপার। তিনি নির্বাচন আচরণবিধি লঙ্ঘনের মিথ্যা তথ্য নির্বাচন কমিশনে পাঠিয়ে মামলার নির্দেশনা নিয়ে এসেছেন। ‘বিশেষ ব্যক্তিদের’ কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে পুলিশ সুপার এই মিশনে নেমেছেন। কিন্তু পুলিশ সুপারের এই মিশন যশোরে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা হতে দেবে না। শাহীন চাকলাদারের নামে মিথ্যা এই মামলা প্রত্যাহার না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন অব্যাহত থাকবে। প্রয়োজনে আরো কঠোর কর্মসূচি দেবে জেলা আওয়ামী লীগ।

শেয়ার