শৈলকুপায় ঝড়ে বাড়িঘর পানের বরজসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি॥সহায়তার আশ্বাস উপজেলা চেয়ারম্যানের

jhor
শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ঝড়ের তান্ডবে ৬টি ইউনিয়নের ৩০টি গ্রাম লন্ডভন্ড হয়েছে। বুধবার রাতে আকস্মিক এই ঝড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ বাড়িঘর বিধ্বস্ত ও পানের বরজসহ ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়। এ সময় কয়েকশ’ পাখিরও মৃত্যু হয়। বিদ্যুতের মেইন সংযোগের পিলার ভেঙ্গে গোটা উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ২২ ঘন্টা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। এদিকে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান।
সরেজমিনে পৌর এলাকা এছাড়া ত্রিবেনী, মির্জাপুর, ফুলহরী, দুধসর, উমেদপুর ও মনোহরপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে বুধবার রাতে কাল বৈশাখী ঝড়ে বিধ্বস্ত হয়েছে শৈলকুপা মহিলা ডিগ্রী কলেজসহ শ’ শ কাঁচা ও আধাপাকা বাড়িঘর, কোন কোন স্থানে ঘরের চালা উড়ে গাছের ডালে আটকে আছে। কোথাও আবার বড় বড় গাছ পড়ে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন হয়েছে। এছাড়া ঝড়ের আঘাতে বিদ্যুতের পিলার ভেঙ্গে শৈলকুপার সমস্ত এলাকা ২২ ঘন্টা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে। ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া মহ-সড়কে গাছ ভেঙ্গে ৪ ঘন্টা সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন থাকে। পরে শৈলকুপা থানা পুলিশ ভেঙ্গেপড়া গাছ অপসারণের পর সড়ক যোগাযোগ চালু করতে সমর্থ হয়। এছাড়া ভেঙ্গে পড়েছে হাজার হাজার মৌসুমি ফলের গাছ। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, ঝড়ে পানের বরজ ও কলা বাগানের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জয় কুমার কুন্ডু বলেন ঝড়ে শত শত বিঘা জমির ফল ধরন্ত কলাগাছ ভেঙ্গে পড়েছে। এছাড়া অন্যান্য ফসলেরও ক্ষতি হয়েছে। বিভিন্ন সুত্র জানায়, ঝড়ের কবলে পড়ে অনেক পাখির মৃত্যু হয়েছে। লন্ডভন্ড হয়েছে বাড়িঘর, গাছপালাসহ ফসলের ক্ষেত।
শৈলকুপা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শিকদার মোশারফ হোসেন জানান, ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে সম্ভাব্য সরকারি সহয়তা প্রদান করা হবে।

শেয়ার