যশোরে সাবেক চরমপন্থী সদস্যকে গুলি করে হত্যা

kupia hotta
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সদর উপজেলার শ্যামনগর গ্রামের সাবেক চরমপন্থী সদস্য ইদ্রিস আলীকে (৫০) গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাতমাইল বাজারে তাকে গুলি করে হত্যা করা হয়। নিহত ইদ্রিস আলী সদর উপজেলার কাশিমপুর ইউনিয়নের শ্যামনগর গ্রামের হাশেম আলী মোল্লার ছেলে। তার বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে। এক সময় ইদ্রিস আলী নিষিদ্ধ ঘোষিত চরমপন্থি দলের নেতা ছিলেন। প্রতিপক্ষ ‘চরমপন্থি’রা তাকে হত্যা করেছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছে। এদিকে, বিএনপি দাবি করেছে ইদ্রিস আলী কাশিমপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি। তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে।
হাসপাতাল সূত্র জানায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় ইদ্রিস আলী সাতমাইল বাজারে অবস্থান করছিলেন। এ সময় অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলে এসে তাকে কাছ থেকে গুলি করে পালিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। যশোর সদর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক কাজী আজম জানান, নিহত ইদ্রিস আলী কাশিমপুর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি। সন্ত্রাসীদের ভয়ে ও নিরাপত্তাহীনতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে সে সাতমাইল এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করতেন। তবে এটি নির্বাচনকেন্দ্রীক হত্যাকা- কিনা এখনও তারা নিশ্চিত হতে পারেননি।
যশোর কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, সাবেক চরমপন্থী নেতা ইদ্রিস আলীকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে। চরমপন্থি নান্নু বাহিনীর সদস্যরা তাকে হত্যা করেছে বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছে। চরমপন্থি নেতা ইদ্রিস আলী ১৯৯৯ সালে সরকার ঘোষিত সাধারণ ক্ষমার আওতায় অস্ত্র জমা দিয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসে। তার বিরুদ্ধে হত্যা, ডাকাতিসহ একাধিক মামলা রয়েছে।

শেয়ার