বিচারপ্রার্থীর পক্ষে মামলা পরিচালনার জের॥ সমিতির গ্যাড়াকলে পড়ে সাময়িক বরখাস্ত যশোরের দুই আইনজীবী

ain
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ একজন বিচারপ্রার্থীর পক্ষে মামলা পরিচালনা করে আইনজীবী সমিতির গ্যাড়াকলে পড়ে সাময়িক বরখাস্ত হয়েছেন যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সবেক সাধারণ সম্পাদক আবু মোর্ত্তজা ছোট এবং সাজ্জাদ হোসেন পাপ্পু। এক সপ্তাহের মধ্যে কারণ দর্শানোর জবাব না দেয়া পর্যন্ত ওই দুই আইনজীবীকে আদালতের সকল প্রকার মামলা পরিচালনা করা থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে। বুধবার সমিতির বর্তমান সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট এমএ গফুর স্বাক্ষরিত এক পত্রে এই শাস্তির বিষয়টি গণমাধ্যমকে জানানো হয়েছে।
শাস্তির নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, শহরতলীর শেখহাটির আব্দুর রশিদ মুন্সির ছেলে সেলিম মিয়ার নামে কোতোয়ালি থানার মামলায় আসামি পক্ষ অ্যাডভোকেট একরামুল ইসলাম মুকুলকে আইনজীবী হিসেবে নিয়োগ দেয়। গত ১৬ মার্চ অ্যাডভোকেট একরামুল ইসলাম মুকুল আদালতে আসামির জামিন আবেদন করলে বিচারক তা না মঞ্জুর করেন। ২৩ মার্চ জেলা জজ আদালতে আবারো জামিনের জন্য ক্রিমিনাল মিস কেস করেন। বিচারক আগামি ৬ এপ্রিল জামিন শুনানির জন্য দিন ধার্য করেন। কিন্তু নির্ধারিত তারিখের আগেই ২৭ মার্চ অ্যাডভোকেট আবু মোর্ত্তজা ছোট এবং সাজ্জাদ হোসেন পাপ্পু পূর্বের আইনজীবী একরামুল ইসলামকে না জানিয়ে আদালত থেকে আসামি সেলিমকে জামিন করিয়ে নেন। এঘটনায় আসামির পূর্বের নিয়োগকৃত আইনজীবী একরামুল ইসলাম মুকুল সমিতিতে অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগে সমিতির শৃঙ্খলা বিরোধী, আইন পেশার অসদাচারণ ও মর্যাদাহানিকর বলে উল্লেখ করেছেন। সমিতির গঠণতন্ত্রের ১০এর (খ) এবং ৬৯ এর (ক,খ) ধারা অনুযায়ী অভিযুক্ত ওই দুই আইনজীবীর সদস্য পদ বাতিলযোগ্য। তাদের সদস্য পদ কেন স্থায়ীভাবে বাতিল হবেনা মর্মে আগামী সাত দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছে। একই সাথে সাময়িক বরখাস্তকালীন সময়ে ওই দুই আইনজীবীর আদালতে সকল প্রকার মামলা পরিচালনা থেকে বিরত থাকার জন্য বলা হয়েছে।

শেয়ার