কোহলির বীরত্বে সেমিতে ভারত

kohel
সমাজের কথা ডেস্ক॥ রান তাড়ায় সীমিত ওভারের ক্রিকেটে এর মধ্যেই কিংবদন্তি বিরাট কোহলি প্রতিনিয়ত ছাড়িয়ে যাচ্ছেন নিজেকেও। চাপের ম্যাচে রান তাড়ায় আরও একবার চেনালেন নিজের জাত। দৃষ্টিনন্দন সব শটে অসাধারণ ধ্রুপদি এক ইনিংসে বলতে গেলে তিনি একাই ভারতকে তুললেন সেমি-ফাইনালে।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের কোয়ার্টার-ফাইনালে রূপ নেওয়া ম্যাচে মোহালিতে অস্ট্রেলিয়াকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে ভারত। ৬ উইকেটে ১৬০ রান তুলেছিল অস্ট্রেলিয়া। শেষ ওভারের প্রথম বলে জিতে যায় ভারত।

৫১ বলে দুই ছক্কা আর ৯ চারে ৮২ রান করে অপরাজিত থাকেন কোহলি।

ইনিংসের প্রথম বলেই চার মেরে শুরু করা উসমান খাওয়াজা দ্বিতীয় ওভারে জাসপ্রিত বুমরাহকে চারবার সীমানা ছাড়া করেন। আর চতুর্থ ওভারে রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে দুবার ছক্কা মারেন অ্যারন ফিঞ্চ।

তাদের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৩.৫ ওভারেই স্কোরবোর্ডে অর্ধশতক তুলে নেয় দলটি। এতে বড় ইনিংসের সম্ভাবনা জাগলেও শেষ পর্যন্ত তা হয়নি।

পঞ্চম ওভারের দ্বিতীয় বলে খাওয়াজাকে উইকেটের পিছনে ক্যাচ বানিয়ে কাঙ্ক্ষিত ব্রেক থ্রু আনেন আশিস নেহরা। ডেভিড ওয়ার্নার ও স্টিভেন স্মিথ দ্রুত বিদায় নিলে চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া।

ফিঞ্চ তখনও ছিলেন, কিন্তু শুরুর মতো বোলারদের উপর ছড়ি ঘোরাতে পারছিলেন না। হার্দিক পান্ডিয়ার করা ত্রয়োদশ ওভারের শেষ বলে তুলে মারতে গিয়ে ডিপ মিডউইকেটে শিখর ধাওয়ানের হাতে এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ক্যাচ দিলে আরও বিপদে পড়ে দলটি।

ফিঞ্চ ৩৪ বলে ৩টি চার ও ২টি ছক্কায় ৪৩ রান করেন।

এরপর গ্লেন ম্যাক্সওয়েল রান রেট বাড়ানোর চেষ্টা করলেও পারেননি। সপ্তদশ ওভারের তৃতীয় বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে বুমরাহর স্লোয়ারে বোল্ড হয়ে যান মারকুটে এই ব্যাটসম্যান (২৮ বলে ৩১)। এই ওভারে মাত্র ৩ রান পায় অস্ট্রেলিয়া।

তবে পান্ডিয়ার করা শেষ ওভারে ১৫ রান নিয়ে ১৬০ লড়াই করার মতো পুঁজি গড়ে অস্ট্রেলিয়া।

৩৬ রান দিয়ে ২ উইকেট নিয়ে পান্ডিয়াই ভারতের সফলতম বোলার।

শেয়ার