আফগানদের ওয়েস্ট ইন্ডিজ বধ

afgan
সমাজের কথা ডেস্ক॥ বোলারদের নৈপুণ্যে আফগানিস্তানকে অল্প রানে বেধে ফেলে প্রথম কাজটা ভালোভাবেই সেরেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। কিন্তু জেগে ওঠা আফগান বোলারদের সামনে মুখ থুবড়ে পড়লো ক্রিস গেইল বিহীন ক্যারিবীয় ব্যাটিং। সুপার টেন পর্ব পেরুতে না পারলেও ৬ রানের অসাধারণ এক জয়েই বিশ্বকাপ মিশন শেষ হলো আইসিসির সহযোগী দেশটির।
নাগপুরে বিদর্ভ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৭ উইকেটে ১২৩ রান করে আফগানিস্তান। জবাবে ৮ উইকেটে ১১৭ রানের বেশি করতে পারেনি ক্যারিবীয়রা।
জিম্বাবুয়ের পর দ্বিতীয় কোনো টেস্ট খেলা দলকে টি-টোয়েন্টিতে হারালো আফগানিস্তান।
ছোট লক্ষ্যে খেলতে নামা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে শুরু থেকেই চেপে ধরে আফগানরা। তৃতীয় ওভারে অভিষিক্ত এভিন লুইসকে শূন্য রানে ফেরান আমির হামজা। বাঁ-হাতি এই স্পিনার পরে আর কোনো উইকেট না পেলেও ব্যাটসম্যানদের দারুণ ভুগিয়েছেন তিনি, ৪ ওভারে মাত্র ৯ রান দেন।
দলীয় স্কোর ৩৮ রানের মধ্যে আরও দুটি উইকেট হারায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জনসন চার্লসকে (১৫ বলে ২২) বোল্ড করেন হামিদ হাসান, একইভাবে স্যামুয়েলসকে (৫ বলে ৫) প্যাভিলিয়নে ফেরান রশিদ খান। এর মধ্যে আবার শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ সেরা আন্দ্রে ফ্লেচার আহত হয়ে মাঠ ছাড়েন (১০)।
প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারিয়ে দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়া ক্যারিবীয়রা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারেনি। ডোয়াইন ব্রাভো ও দিনেশ রামদিনরা চেষ্টা করলেও নিজেদের ইনিংসটাকে বড় করতে পারেননি।
শেষ দুই ওভারে ২৫ রানের প্রয়োজন ছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজের। ১৯তম ওভারে ড্যারেন স্যামির উইকেট পড়লেও ক্রেইগ ব্রেথওয়েইট দুই ছক্কা মেরে জয়ের সম্ভাবনা জোরালো করেন।
শেষ ওভারে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১০। কিন্তু অভিজ্ঞ অলরাউন্ড-স্পিনার মোহাম্মদ নবি প্রথম দুই বলে কোনো রান না দিয়ে তৃতীয় বলে শিকার করলেন আট বলে ১৩ রান করা ব্রেথওয়েইটকে। দৌড়ে এসে চমৎকার ক্যাচটি ধরেন ম্যাচ সেরা নাজিবুল্লাহ জারদান।
এরপর চোট নিয়েও ব্যাট ফ্লেচার ফিরলেও হার এড়াতে পারেননি।
রশিদ খান ও নবি ২টি করে উইকেট নেন। দুজনেই ৪ ওভার করে বল করে ২৬ রান করে দেন।
এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ৫৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে আফগানিস্তান। ওখান থেকে দৃঢ়তার সঙ্গে ব্যাট করে দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন নাজিবুল্লাহ।
এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান ৪৮ রানে অপরাজিত থাকেন। তার ৪০ বলের ইনিংসটি ৪টি চার ও ১টি ছক্কা সমৃদ্ধ। মোহাম্মদ শাহজাদ ২৪ ও আসগর স্তানিকজাই ১৬ রান করেন।
স্যামুয়েল বদ্রি ১৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সফলতম বোলার।
ক্রিকেটের যে কোনো সংস্করণে আফগানদের সঙ্গে প্রথমবারের দেখায় ১২৪ রানের ছোটো লক্ষ্য বিশ্রামে থাকা গেইলকে ছাড়া আর পারি দিতে পারল না ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ম্যাচ শেষে অবশ্য গেইল মাঠে এসে যোগ দিলেন উদযাপন করতে থাকা আফগানদের সঙ্গে। আফগান ক্রিকেটাররা সবাই মিলে ‘সেলফি’ তুললেন টি-টোয়েন্টির অন্যতম সেরা এই ব্যাটসম্যানের সঙ্গে।
গেইল অবশ্য খুশি মনে থাকতেই পারেন। প্রথম তিন ম্যাচ জিতে আগেই সেমি-ফাইনাল নিশ্চিত করেছিল ড্যারেন স্যামির দল। শেষ ম্যাচ হারলেও নেট রান রেটের হিসেবে ইংল্যান্ডকে পেছনে ফেলে গ্রুপের শীর্ষস্থান পেয়েছে তারা।

শেয়ার