মহান স্বাধীনতা দিবসের ৩ দিনব্যাপী কর্মসূটি শুরু॥ চাঁদের হাট, সুরধুনী, পুনশ্চ, শ্রুতি যশোরের শিল্পীদের সংগীত পরিবেশনা অনুষ্ঠিত

onusthan
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোরে মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপনে তিন দিনের নানা অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। যশোর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরের টাউন হল ময়দানে গতকাল থেকে এই অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। এদিন বিকেলে শিশুদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। এ অনুষ্ঠানে চাঁদের হাট, সুরধুনী, পুনশ্চ, শ্রুতি যশোরের শিল্পীবৃন্দ সংগীত পরিবেশন করে। আবৃত্তি করে অন্বেষা বিশ্বাস ও মাশরাবা মাহজেবীন পিউলী। অনুষ্ঠানে জেলা শিশু একাডেমীর প্রযোজনায় জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাসের পরিকল্পনা ও নৃত্য শিক্ষক সেলিম হোসেনের পরিচালনায় ‘ইতিহাসের পাতা থেকে’ গীতি আলেখ্য মঞ্চস্থ হয়। শিশুদের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান শেষে স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘স্বাধীনতা দিবসের তাৎপর্য’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) পারভেজ হাসানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন জেলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা সাধন কুমার দাস, যশোর সিটি কলেজের বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র তরফদার জাহাঙ্গীর, এমএম কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র তাসনিমুল হাসান, ডাক্তার আব্দুর রাজ্জাক মিউনিসিপ্যাল কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্র হাসিবুজ্জামান সীমান্ত, যশোর জিলা স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র আশিকুর রহমান, সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী তাসনিম জারিন ইম্পা, যশোর কালেক্টরেট স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্র প্রান্ত সাহান, পুলিশ লাইন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র নাহিদ হাসান, যশোর আমিনিয়া কামিল মাদ্রাসার দশম শ্রেণির ছাত্র নিয়ামুল ইসলাম এবং যশোর মধুসূদন তারা প্রসন্ন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয় ও কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্রী ফাহমিদা হোসেন। আলোচনা শেষে তির্যক যশোরের প্রযোজনায় নাটক মঞ্চস্থ হয়। এদিকে আজ ভয়াল কালরাত্রি স্মরণে অনুষ্ঠানমালায় রয়েছে বিকেল ৫টায় জেলা তথ্য অফিসের উদ্যোগে মুক্তিযুদ্ধ ভিত্তিক প্রামাণ্য চলচ্চিত্র প্রদর্শন, বিকেল ৫টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, সন্ধ্যা ৬টায় স্বাধীনতা যুদ্ধে নারীদের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভা হবে। অন্যেিদক, আগামীকাল মহান স্বাধীনতা দিবসে যশোরে নানা কর্মসূচি হাতে নেওয়া হয়েছে। সরকারি, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের উদ্যোগে দিনব্যাপি নানা কর্মসূচি পালিত হবে। বিজয়স্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করবে বিভিন্ন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও সংগঠন। সকাল ৮ টায় শামস-উল-হুদা স্টেডিয়ামে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে। পুলিশ, বিএনসিসি, আনসার ও ভিডিপি, ফায়ার সার্ভিস, শিশু পরিবার, যুব সংগঠনসহ শহরের বিভিন্ন স্কুল, কলেজের শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে কুচকাওয়াজ ও ডিসপ্লে প্রর্দশন করা হবে। সকাল ১০ টায় কালক্টরেট স্কুল প্রাঙ্গণে ‘মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক বিষয়ে শিশুদের চিত্রাঙ্কন ও কবিতা আবৃত্তি শেষে পুরষ্কার বিতরণ করা হবে। সকাল সাড়ে ১০ টায় ইসলামী ফাউন্ডেশনে আলোচনা সভা শেষে শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনা করে দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। সকাল সাড়ে ১১ টায় পৌর পার্কে অস্বচ্ছল ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের খেলাধুলার ব্যবস্থা করা হবে। সকাল সাড়ে ১১ টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে টাউনহল মাঠে আলোচনা সভা শেষে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা ও উন্নতমানের খাবার বিতরণ করা হবে। জোহরের নামাজ শেষে শহীদদের আত্মার শান্তি কামানা করে দোয়া কামনা করা হবে। হাসপাতাল, জেলখানা, এতিমখানা, শিশু পরিবার ও ভবঘুরে শিশুদের মাঝে উন্নতমানের খাবার বিতরণ করা হবে। বিকালে সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে মহিলাদের ক্রীড়া প্রতিযোগিতার ব্যবস্থা করা হবে। বিকালে প্রবীণদের হাটা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। বিকাল সাড়ে ৫ টায় স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসন বনাম পৌরসভা একাদশের প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা হবে। সন্ধ্যা ৭ টায় টাউনহল মাঠে মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতা ও সুখী সমৃদ্ধি বাংলাদেশ গঠনে ডিজিটাল প্রযুক্তি শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। একই মঞ্চে নাটক, নৃত্য ও সংগীত পরিবেশন করা হবে।

শেয়ার