খুলনার বরখাস্ত মেয়র মনিরুজ্জামান কারাগারে

monir
সমাজের কথা ডেস্ক॥ পুলিশের উপর হামলার মামলায় খুলনা সিটি কপোরেশনের বরখাস্ত মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামানকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে আদালত।
খুলনা মহাগনর দায়রা জজ অদালতের বিচারক অরুপ কুমার গোস্বামী বুধবার এ আদেশ দেন।
মনিরুজ্জামানের আইনজীবী গোলাম মওলা বিডিনিউজ টোয়োন্টেফোর ডটকমকে বলেন, বেলা ১১টার দিকে আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন মনিরুজ্জামান। বিচারক তার আবেদন নাকচ করেন।
নাশকতার মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির পরও আত্মসমর্পণ না করায় গত বুধবার মনিরুজ্জামানসহ ছয়জনের অস্থাবর সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দেয় আদালত।
আরও যাদের সম্পত্তি জব্দের আদেশ হয় তারা হলেন, বিএনপি নেতা সিটি করপোরেশনের ২০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শেখ গাউছুল আজম গাউছ, ২৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর কে এম হুমায়ূন কবীর, মো. শাহীন ও মো. গাউছ।
একই আদালত আরেক মামলায় ইসলামী ছাত্র শিবির খুলনা মহানগর শাখার সাবেক সভাপতি আজিজুল ইসলাম ফারাজীর মালামালও জব্দের নির্দেশ দেয়।
মামলার নথি থেকে জানা যায় ২০১৩ সালের ১১ নভেম্বর খুলনা মহানগরীর পাওয়ার হাউজ মোড়ে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অবরোধে পুলিশের ওপর হামলা হয়। এ ঘটনায় খুলনা সদর থানার এসআই অনুকুল চন্দ্র ঘোষ বাদী হয়ে বিএনপি-জামায়াতের ৪৫ জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাতপরিচয় আড়াইশ জনকে আসামি করে মামলা করেন।
এরপর ২০১৫ সালের ৩০ এপ্রিল খুলনা সদর থানার এসআই তাপস কুমার পাল মেয়র মনিরুজ্জামানসহ ৫২ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।
এরপর ২০১৫ সালের ২ নভেম্বর স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় মেয়র মনিরুজ্জামানকে সাময়িক বরখাস্ত করে। ২২ নভেম্বর তিনিসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করে আদালত।

শেয়ার