মণিরামপুরে আওয়ামী লীগের জয়জয়কার ॥ ‘দলকে সুসংগঠিত করে জয়ের নেপথ্য নায়ক শাহীন চাকলাদার’

moni
মোতাহার হোসেন, (যশোর) মণিরামপুর॥ যশোরের মণিরামপুরে উৎসবমুখর ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ১৬টি ইউনিয়নের ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। এবারের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীদের জয়জয়কার হয়েছে। মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনের ফলাফলে ১৬ ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আ’লীগ ১১টি, বিএনপি ৩টি ও স্বতন্ত্র (আ’লীগ বিদ্রোহী) ২টিতে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হয়েছেন বলে বিভিন্ন সূত্র থেকে প্রাপ্ত ফলাফলে জানা গেছে। আর মণিরামপুরে আওয়ামী লীগের এমন চমক জাগানিয়া ফলাফলের নেপথ্য কারিগর হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারের কথাই বলছেন স্থানীয় নেতাকর্মীরা।
মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে মণিরামপুরের ১৬টি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণ ও উৎসবমুখর পরিবেশে ইউপি নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া তেমন কোনো সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। বরং প্রশাসন কঠোরতার নামে কোনো কোনো কেন্দ্র এলাকায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী ও তার সমর্থকদের উপরই চড়াও হয়েছে; এমন অভিযোগ করেছেন নেতাকর্মীরা।
মঙ্গলবার সকালে মণিরামপুরের রোহিতা ইউনিয়নের পলাশী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা গেছে নারী ভোটারদের ব্যাপক উপস্থিতিতি। উৎসবমুখর পরিবেশে ভোটাররা লাইনে দাঁড়িয়ে ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন। লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা পলাশী গ্রামের বাসিন্দা জলি ম-ল ও শিল্পী বিশ্বাস জানান, পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দেওয়ার জন্য কেন্দ্রে এসেছেন। কেউ হুমকি ধামকি দেয়নি। মনে হচ্ছে সুষ্ঠুভাবে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। আরেকজন ভোটার রেখা বেগমও জানালেন কোন হুমকি ধামকি নেই। প্রভাবমুক্ত পরিবেশে ভোট দিতে পারছেন।
পলাশী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের প্রিসাইডিং অফিসার নিহার রঞ্জন অধিকারী জানান, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ভোটার উপস্থিতি ভালো। ভোটাররা স্বতস্ফূর্তভাবে ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিচ্ছে। ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষে রাতে প্রাথমিকভাবে নির্বাচিতদের নাম ঘোষণা করা হয়।
প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী, রোহিতা ইউনিয়নে আ’লীগ সমর্থিত আনসার আলী ৭৮৩৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াতের দেলোয়ার হোসেন পেয়েছেন ৫৯৮৮। কাশিমনগর ইউপিতে বিএনপির জিএম আহাদ আলী ৪৫৪৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ’লীগের স্বপন কুমার দাস পেয়েছেন ৩০১১ ভোট। ভোজগাতী ইউপিতে আ’লীগের আব্দুর রাজ্জাক ২৯৫৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জামায়াতের হুমায়ুন কবীর মুক্তা ২৫০৫ ভোট পেয়ে পরাজিত হয়েছেন। ঢাকুরিয়া ইউপিতে আ’লীগের দূর্গাপদ সিংহ ৮৬৩৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটকতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির জিএম মিজানুর রহমান ৪৮৫৯ ভোট পেয়েছেন। হরিদাসকাটি ইউপিতে আ’লীগের বিপদ ভঞ্জন পাঁড়ে ৩০০০ ভোটের ব্যবধানে আ’লীগের বিদ্রোহী স্বদেশ কুমার সরকারকে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়েছেন। মনিরামপুর সদর ইউপিতে বিএনপির নিস্তার ফারুক মাত্র ৩৫ ভোট বেশী পেয়ে আ’লীগের ইয়াকুব আলী গাজীকে পরাজিত করে নির্বাচিত হয়েছেন। খেদাপাড়া ইউপিতে আ’লীগ বিদ্রোহী সরদার মুজিবর রহমান ৭৬২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির শামছুজ্জামান শান্ত পেয়েছেন ৪০১৪ ভোট পেয়েছেন। ঝাঁপা ইউপিতে আ’লীগ মনোনীত সামছুল হক মন্টু ৯৭৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আলাউদ্দিন আহমেদ পেয়েছেন ৩৬০৬ ভোট। মশ্মিমনগর ইউপিতে আ’লীগের আবুল হোসেন ৪৮৫০ ভোটের ব্যবধানে বিএনপির বিদ্রোহী ইয়ামিন হোসেনকে পরাজিত করে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। চালুয়াহাটি ইউপিতে আ’লীগ বিদ্রোহী আবদুল হামিদ সরদার ৭০৯৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির বজলুর রহমান পেয়েছেন ৬১১৫ ভোট। শ্যামকুড় ইউপিতে আ’লীগের মনিরুজ্জামান মনি ১৩৭৫১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির এস.এম.মশিউর রহমান ভোট পেয়েছেন ৩২২৯। খানপুর ইউপিতে আ’লীগের গাজী মোহাম্মদ ১৩৫০০ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির অ্যাডভোকেট মুজিবুর রহমান পেয়েছেন ২০১৫ ভোট। দূর্বাডাঙ্গা ইউপিতে আ’লীগের সরদার বাহাদুর আলী ৮৭৫৬ ভোট পেয়ে ৮ম বারের মত চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আলতাফ হোসেন পেয়েছেন ৩৭৩৫ ভোট। কুলটিয়া ইউপিতে আ’লীগের শেখর চন্দ্র রায় ৬২৭৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ’লীগের বিদ্রোহী পরিতোষ কুমার বিশ্বাস পেয়েছেন ৪১২১। নেহালপুর ইউপিতে বিএনপির নজমুছ সাদত ৩৩৪৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আ’লীগের ফারুক হুসাইন পেয়েছেন ২৫২৫ ভোট এবং মনোহরপুর ইউপিতে আ’লীগের মশিয়ূর রহমান ৪২৪৮ ভোট পেয়ে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন, নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির আকতার ফারুক মিন্টু ৩৫১৮ ভোট পেয়েছেন।
এদিকে, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা মণিরামপুরে ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের এমন ফলাফলের নেপথ্য কারিগর হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক সদর উপজেলা চেয়ারম্যান শাহীন চাকলাদারের কথাই বলছেন। স্থানীয় নেতৃবৃন্দ জানান, ইউপি নির্বাচন মাঠে গড়ানোর আগে থেকেই মণিরামপুরে দলকে সুসংগঠিত করতে কাজ করে গেছেন শাহীন চাকলাদার। আর নির্বাচনী ডামাডোল বেজে ওঠার সাথে সাথেই তিনি প্রতিনিয়ত দলের সঙ্গে কাজ করে তৃণমূলে সংগঠনকে আরো শক্তিশালী করেছেন। নির্বাচনী প্রচারণার শেষপর্যায়ে এসে প্রতিটি ইউনিয়নে ঘুরে ঘুরে পথসভা করে, নেতাকর্মীদের সাথে বৈঠক করে নির্বাচনী পরিবেশ ও জনমতকে অনুকূলে আনতে ভূমিকা রেখেছেন। সর্বোপরি জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দকে সাথে নিয়ে শাহীন চাকলাদারের প্রচার প্রচারণার ফলাফল ঘরে তুলেছে আওয়ামী লীগ; এমনটিই মন্তব্য নেতাকর্মীদের।

শেয়ার