ব্রাসেলস বিমানবন্দরে হামলায় সন্দেহভাজনকে খুঁজছে পুলিশ

bracels

সমাজের কথা ডেস্ক॥ ব্রাসেলস বিমানবন্দর ও মেট্রো স্টেশনে আত্মঘাতী বোমা হামলার ঘটনায় সন্দেহভাজন একব্যক্তিকে ধরতে ব্যাপক অভিযান চালাচ্ছে বেলজিয়ামের পুলিশ। মঙ্গলবারের ওই হামলায় অন্ততপক্ষে ৩০ জন নিহত ও কয়েকশ মানুষ আহত হয়েছেন।
প্যারিস হামলার মূল সন্দেহভাজন সালেহ আব্দেস্লামকে গ্রেফতারের চারদিন পর ভয়াবহ ওই হামলার ঘটনায় বেলজিয়ামজুড়ে উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে।
ব্রাসেলসের ইয়াবেনতেম বিমান বন্দরের ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সেই সন্দেহভাজন ব্যক্তির ছবি প্রকাশ করেছে পুলিশ।
পুলিশ ব্রাসেলসের স্কায়েরবিক এলাকার একটি অ্যাপার্টমেন্ট থেকে কিছু বিস্ফোরক দ্রব্য, রাসায়নিক বস্তু ও আইএসের একটি পতাকা উদ্ধার করেছে বলে বেলজিয়ামের সরকারি আইন কর্মকর্তা ফ্রেডরিক ভ্যান লিউ‘র বরাতে বিবিসি জানিয়েছে।
তিনি বলেন, পুলিশ হ্যাট ও হালকা রঙের জ্যাকেট পরিহিত এক ব্যক্তিকে খুঁজছে। ইয়াবেনতেম বিমানবন্দরের ভিডিও ফুটেজে ওই ব্যক্তিকে দুই আত্মঘাতী বোমা হামলাকারীর সঙ্গে ট্রলি নিয়ে হাঁটতে দেখা গেছে।
হামলার পর এক ট্যাক্সি ড্রাইভারের দেয়া তথ্যানুযায়ী পুলিশ স্কায়েরবিক এলাকায় অভিযান চালায় বলে লিউ জানিয়েছেন।
তিন হামলাকারী ওই ট্যাক্সিতে করেই বিমানবন্দর এসেছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।
হামলাকারীরা তাদের সুটকেসের মধ্যে গোপনে বোমাগুলো নিয়ে এসেছিল বলে ইয়াবেনতেমের মেয়র ফ্রান্সিস ভারমেইনেন জানিয়েছেন।
মঙ্গলবার স্থানীয় সময় ৮টার দিকে ইয়াবেনতেম বিমানবন্দরে প্রথম বোমাটি বিস্ফোরিত হয়।আহতরা ঘটনাস্থল ছেড়ে বেরিয়ে আসার চেষ্টা করার সময় আরও একটি বোমা বিস্ফোরিত হয়।

ঘটনাস্থল থেকে পরে আরও একটি বোমা পাওয়া যায়। নিরাপত্তাবাহিনী সেটি নিষ্ক্রিয় করে। বিমানবন্দরে হামলার প্রায় ঘণ্টাখানেক পর ব্রাসেলসের ইইউ সদরদপ্তরের কাছে মলবেক মেট্রো স্টেশনে বোমা হামলার ঘটনা ঘটে।
একটি ক্রাইসিস সেন্টারের মুখপাত্রের বরাত দিয়ে হামলায় প্রাথমিক হিসাস অনুযায়ী মেট্রো স্টেশনে ২০ জন এবং বিমানবন্দরে ১০ জন নিহত হওয়ার খবর জানিয়েছে রয়টার্স।
এর আগে দেশটির সম্প্রচারমাধ্যম ভিআরটি’র খবরে মেট্রো স্টেশনে ২০ জন এবং বিমানবন্দরে ১৪ জন নিহত হওয়ার কথা বলা হয়েছিল।
ওদিকে, বেলজিয়ামের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর বরাত দিয়ে বিবিসি ইয়াবেনতেম বিমানবন্দরে জোড়া বিস্ফোরণে ১১ জন নিহত এবং ৮১ জন আহত হওয়ার কথা জানায়।
জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) সংশ্লিষ্ট আমাক বার্তা সংস্থা বলেছে, ইসলামিক স্টেটের যোদ্ধারা ইয়াবেনতেম বিমানবন্দরে আগে গুলি ছোঁড়ে, এরপরই তাদের কয়েকজন বিস্ফোরক বেল্টের বিস্ফোরণ ঘটায়। অন্যদিকে, আরেকজন বোমা হামলাকারী মেট্রো স্টেশনে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ‘শহীদ’ হয়।

শেয়ার