পৌর ভোটের দ্বিতীয় ধাপে আওয়ামী লীগ দশে দশ

vote
সমাজের কথা ডেস্ক॥ পৌর নির্বাচনের দ্বিতীয় ধাপে দশ পৌরসভার সবগুলোতেই মেয়র পদে নির্বাচিত হয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা।
বিক্ষিপ্ত সহিংসতা আর বিভিন্ন স্থানে অনিয়মের অভিযোগের মধ্যে রোববার এই ভোটে কোনো পৌরসভাতেই বিএনপির মেয়র প্রার্থীরা জয় পাননি।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভায় বিজয়ী আওয়ামী লীগের প্রার্থী নায়ার কবিরই রোববারের ভোটে নির্বাচিত একমাত্র নারী মেয়র।
গতবছর ৩০ ডিসেম্বর ২৩৪ পৌরসভায় হওয়া প্রথম দফার ভোটেও ভরাডুবির মুখে পড়ে বিএনপি।
দ্বিতীয় দফায় রংপুরের হারাগাছ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, ঝালকাঠী সদর, নোয়াখালীর কবিরহাট, কুমিল্লার নাংগলকোট, ফরিদপুরের ভাংগা, কক্সবাজারের চকরিয়া ও মহেশখালী, ফেনীর সোনাগাজী ও ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ পৌরসভায় ভোট হয় রোববার।
ভোটগ্রহণ শুরুর প্রায় তিন ঘণ্টা পর কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেও বাকি আট পৌরসভায় মাঠের লড়াইয়ে ছিলেন তারা।
ভোটের সকালে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি কেন্দ্রে হামলা ও ব্যালটপেপার লুটের ঘটনা ঘটে। কক্সবাজারের মহেশখালীতে আওয়ামী লীগ ও দলের বিদ্রোহী প্রার্থীর সমর্থকদের সঙ্গে সংর্ঘষে অন্তত ১৭ জন আহত হন।
এছাড়া ভোটে অনিয়মের অভিযোগে নোয়াখালীর কবিরহাটের ইন্দ্রপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও আলীপুর ইঞ্জিনিয়ার ইনস্টিটিউট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন।
প্রথম দফার ২৩৪টি পৌরসভার মধ্যে ২২৭টির ফল ঘোষণা হয়, যার ১৭৭টিতে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ এবং ২২টিতে বিএনপির প্রার্থীরা নির্বাচিত হন।
দ্বিতীয় দফার ভোট শেষে নির্বাচিত মেয়রদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির অনুপাত দাঁড়ালো- ১৮৭ : ২২।
অন্য রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে কেবল জাতীয় পার্টির একজন প্রথম দফায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। যে ২৬ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন, তার ১৮ জনই আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী।

শেয়ার