অপপ্রচার চালিয়ে বসুন্দিয়ায় বিএনপি প্রার্থীর ‘সুবিধা’ নেওয়া চেষ্টা ॥ ভোটের মাঠে নাশকতা মামলার আসামিরা, আতংক

Upojela nirbachon
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সদর উপজেলার বসুন্দিয়া ইউপি নির্বাচনে বিএনপি প্রার্থীর প্রচারণায় হামলা চালানো হয়েছে বলে অপপ্রচার চালাচ্ছে একটি মহল। এমন গুজব ছড়িয়ে বিএনপির প্রার্থী নাশকতা মামলার আসামিদের নিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রচারণায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে। এতে সাধারণ ভোটারদের মাঝে আতংকের সৃষ্টি হয়েছে।
এদিকে, বিএনপি প্রার্থী অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামানের প্রচারনায় ‘কথিত হামলায় আহত’ নূর ইসলাম গতকাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন এমন কোন ঘটনা ঘটেনি।
জানা গেছে, গত শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বসুন্দিয়া ইউনিয়নের জঙ্গলবাধাল গ্রামে প্রচরণায় যান ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামান খানসহ তার লোকজন। তাদের মধ্যে থাকা অধিকাংশই নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলার আসামি। এসময় তারা ভোট না দিলে পরে দেখে নেয়া হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। এতে তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয় স্থানীয় লোকজন। এসময় ওই প্রার্থী নিজেই সহযোগিদের নিয়ে এলাকা ত্যাগ করেন। পরে বিষয়টি ভিন্নখাতে নিতে অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামান খান তার দলীয় লোকজনের কাছে এবং সংবাদ পত্রেও মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করানো হয়েছে।
জানা গেছে, অ্যাডভোকেট নূরুজ্জামান খান ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনেও তিনি বিএনপি দলীয় চেয়ারম্যান প্রার্থী ছিলেন। বিগত ২০১৩ সালে শেষের দিক থেকে তার নেতৃত্বে থাকা বেশ কিছু সন্ত্রাসীদের নিয়ে পিকেটিংয়ের নামে গাড়ি ভাংচুর, পথচারিদের মারপিট, অগ্নিসংযোগসহ সাধারণ মানুষের মাঝে নানা ধরনের আতংক সৃষ্টি করেছেন। এমনকি তিনি নিজেই গাড়ি ভাংচুর করেছেন। যদিও লোকটি কৌশলে নাশকতা মামলা থেকে রেহাই পেয়েছেন। কিন্তু তার নেতৃত্বে এলাকায় অনেক ক্ষতি করা হয়েছে। এতে এলাকাবাসীর মাঝে নূরুজ্জামান সম্পর্কে বিরূপ প্রতিক্রিয়া রয়েছে।
আসন্ন নির্বাচনে এবারও তিনি বিএনপি দলীয় ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী হয়েছেন। নাশকতার ঘটনায় ইউনিয়নবাসী তার উপর থেকে মুখ ফিরিয়ে নেয়ায় বিষয়টি বুঝতে পেরে নিজেই নাটক সাজাচ্ছেন। বর্তমানে তার সাথে ঘুনি গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে সাইফুর রহমান, ঘুনি জমাদ্দার পাড়ার নাজমুল হুদা, আক্তার হোসেন, সেলিম রেজা, আমিনুর রহমান, নাথপাড়ার লিটন, মীরখালি পাড়ার মিজান ধোপা, মিজান মোল্যা, শাখারিপাড়ার আয়ুব আলী, পদ্মবিলার আমিনুর, জাহিদ, পান্নু, গাইদগাছির সনি ও তনি, জয়ন্তা গ্রামের শাহীনুর, জঙ্গলবাধালের মজু, জগন্নাথপুরের তুহিন, দলনঘাটার শাহজাহান। এরা সকলেই একাধিক নাশকতা মামলার আসামি।
অন্যদিকে, কথিত হামলার ঘটনায় নূর ইসলাম নামে ধানের শীষ প্রতীকের এক কর্মীকে আহত বলা হয়েছে। তবে নূর ইসলাম জানিয়েছেন এধরনের কোন ঘটনাই ঘটেনি। বরং নূরুজ্জামানের সাথে থাকা লোকজন সাধারণ ভোটারদের হুমকি দেয়ায় স্থানীয়দের তোপের মুখে পড়ে এলাকা ত্যাগ করেন।
এব্যাপারে বসুন্দিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই সোহরাব হোসেন বলেন, বিএনপি প্রার্থীর নির্বাচনী প্রচারনায় কোন হামলার ঘটনা ঘটেনি।

শেয়ার