যশোর জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন আজ॥ জুলু-মোহাম্মদ আলী, হারুন-মিজান ও ইলিয়াস-বিষু পরিষদ মুখোমুখি

poribohon
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন (৪৬২) এর ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে আজ। সংগঠনের চাঁচড়া চেকপোস্টস্থ কার্যালয়ে সকাল ৮ টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে চলবে ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে ৩০টি বুথে ১ হাজার ৮৩৬ জন সদস্য ব্যালটের মাধ্যমে তাদের নেতৃত্ব নির্বাচিত করবেন। নির্বাচনে ১৬ টি পদের বিপরীতে তিন প্যানেলে ৪৮ জন ও ১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্যানেল তিনটি হচ্ছে জুলু-মোহাম্মদ আলী পরিষদ, হারুন-মিজান পরিষদ ও ইলিয়াস-বিষু পরিষদ। নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের মো. জুলু হোসেন, হারুন-মিজান পরিষদের হারুন-অর-রশিদ, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের মো. ইালয়াস হোসেন। সহ-সভাপতি ৩টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের মো. রেজাউল হোসেন, মো. আব্দুর রশিদ ও নুর আলম, হারুন-মিজান পরিষদের শহিদুর রহমান সবুজ, ইদ্রিস আলী ও মোবারক হোসেন, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের হিরু মিয়া, ইসরাফিল হোসেন ও নুর ইসলাম ড্রাইভার। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের মোহাম্মদ আলী, হারুন-মিজান পরিষদের মিজানুর রহমান মিজান, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের বিশ্বনাথ ঘোষ। সহ-সাধারণ সম্পাদক ৩টি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের ফারুক হোসেন, আবুল কালাম ও রাশেদুল ইসলাম, হারুন-মিজান পরিষদের আব্দুর রহমান, আব্দুস সামাদ ও ইউনুস আলী, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের ওহিদুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর হোসেন ও জাহাঙ্গীর আলম এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহাঙ্গীর। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের শাহাজালাল, হারুন-মিজান পরিষদের রফিক, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের আজিজুল ইসলাম। সহ-সংগঠনিক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের আক্তারুজ্জামান, হারুন-মিজান পরিষদের আবু সাইদ, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের সলেমান আলী। প্রচার সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের কামাল হোসেন, হারুন-মিজান পরিষদের ইউনুস ড্রাইভার, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের জাকারিয়া হোসেন। সড়ক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন শামছুর রহমান, হারুন-মিজান পরিষদের নাছির ড্রাইভার, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের সিরাজুল ইসলাম। সহ-সড়ক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের আব্দুল আজিজ, হারুন-মিজান পরিষদের রফিকুল ইসলাম, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের জাহিদ হোসেন। কোষাধ্যক্ষ পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের আহম্মদ আলী, হারুন-মিজান পরিষদের সাইফুল ইসলাম, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের আরশাদ আলী। ক্রীড়া সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের রুস্তম আলী, হারুন-মিজান পরিষদের বাবলু ব্যাপারী, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের সেলিম হোসেন। সমাজকল্যাণ পদে প্রতিদ্বন্দ্বতা করছেন জুলু-আলী পরিষদের আলমগীর হোসেন, হারুন-মিজান পরিষদের হেলাল ড্রইভার, ইলিয়াস-বিষু পরিষদের শামীম হোসেন। নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সদস্য সচিব মাহাবুবুর রহমান মজনু বলেন, সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্নের লক্ষে যাবতীয় গ্রহণ করা হয়েছে। উৎসবমুখুর পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে বলে আশা করছি।

শেয়ার