ভারত বধের পর এবার নিউজিল্যান্ডের শিকার অস্ট্রেলিয়া

nz
সমাজের কথা ডেস্ক॥ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টানা দ্বিতীয় জয় পেয়েছে নিউ জিল্যান্ড। আগের ম্যাচে ভারতকে হারানো দলটির এবারের শিকার অস্ট্রেলিয়া। মিচেল ম্যাকক্লেনাগানের দারুণ বোলিংয়ে স্টিভেন স্মিথের দলকে ৮ রানে হারিয়েছে এখনও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা না জেতা দলটি।
শুক্রবার ধর্মশালার হিমাচল প্রদেশ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ১৪২ রান করে নিউ জিল্যান্ড। জবাবে ৯ উইকেটে ১৩৪ রানের বেশি করতে পারেনি অস্ট্রেলিয়া।
লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে শেন ওয়াটসনের সঙ্গে ৪৪ রানের জুটিতে দলকে ভালো সূচনা এনে দেন উসমান খাওয়াজা। ষষ্ঠ ওভারে ওয়াটসনকে ফিরিয়ে প্রথম আঘাত হানেন ম্যাকক্লেনাগান।
নিজের প্রথম ওভারে স্টিভেন স্মিথকে ও দ্বিতীয় ওভারে ডেভিড ওয়ার্নারকে ফিরিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে চাপে ফেলেন মিচেল স্যান্টনার। এর মাঝখানে রান আউট হয়ে ফিরেন ছন্দে থাকা খাওয়াজা (৩৮)।
প্রথম ৫ ওভারে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৪২ রান সংগ্রহ করা অস্ট্রেলিয়া পরের পাঁচ ওভারে ২৪ রান তুলতেই হারায় ৩ উইকেট। ৬৬ রানে প্রথম চার ব্যাটসম্যানকে হারানো দলটি প্রতিরোধ গড়ে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল ও মিচেল মার্শের বলে।
১৫ ওভারে দলকে একশ’ রানে পৌছে দেন এই দুই জনে। কিন্তু ঝড় তোলার আগেই ম্যাক্সওয়েলকে ফেরান ইশ সোধি। তবে অস্ট্রেলিয়াকে এগিয়ে নিতে থাকেন মার্শ। তার দৃঢ়তায় ১৮ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ছিল ৫ উইকেটে ১২১ রান।
শেষ দুই ওভারে স্মিথের দলটির প্রয়োজন ছিল ২২ রান। ১৯তম ওভারে তিন রান দিয়ে মার্শ ও অ্যাশটন অ্যাগারকে ফিরিয়ে নিউ জিল্যান্ডকে জয়ের পথে নিয়ে আসেন ম্যাচ সেরা ম্যাকক্লেনাগান।

এরপরও সুযোগ ছিল অস্ট্রেলিয়ার, কিন্তু শেষ ওভারের প্রথম বলে কোরি অ্যান্ডারসন জেমস ফকনারকে ফিরিয়ে দিলে আর পেরে উঠেনি দলটি। ১৭ রানে তিন উইকেট নিয়ে নিউ জিল্যান্ডের সেরা বোলার ম্যাকক্লেনাগান। এছাড়া দুটি করে উইকেট নেন অ্যান্ডারসন ও স্যান্টনার।
এর আগে কেন উইলিয়ামসনের সঙ্গে ৬১ রানের উদ্বোধনী জুটিতে নিউ জিল্যান্ডকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন মার্টিন গাপটিল। তাকে ফিরিয়ে ৭.১ ওভার স্থায়ী বিপজ্জনক হয়ে উঠা এই জুটি ভাঙেন ম্যাক্সওয়েল। সর্বোচ্চ ৩৯ রান করা গাপটিলের ২৭ বলের ইনিংসটি ৪টি ছক্কা ও দুটি চার সমৃদ্ধ।
এরপর উইলিয়ামসন (২৬ বলে ২৩), অ্যান্ডারসন দ্রুত ফিরে গেলে চাপে পড়ে নিউ জিল্যান্ড। পরের ব্যাটসম্যানের ব্যর্থতায় ভালো শুরুর সুবিধা কাজে লাগাতে পারেনি দলটি। তবে কলিন মানরো (২৬ বলে ২৩) ও গ্র্যান্ট এলিয়টের (২০ বলে ২৭) দুটি ছোট্ট কিন্তু কার্যকর ইনিংসে লড়াইয়ের পুঁজি পেয়ে যায় তারা।
অস্ট্রেলিয়ার ম্যাক্সওয়েল ও ফকনার দুটি করে উইকেট নেন।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

নিউ জিল্যান্ড: ২০ ওভারে ১৪২/৮ (গাপটিল ৩৯, উইলিয়ামসন ২৪, মানরো ২৩, অ্যান্ডারসন ৩, টেইলর ১১, এলিয়ট ২৭, রনকি ৬, স্যান্টনার ১, মিলনে ২*; ম্যাক্সওয়েল ২/১৮, ফকনার ২/১৮, ওয়াটসন ১/২২, মার্শ ১/২৬)

অস্ট্রেলিয়া: ২০ ওভারে ১৩৪/৯ (খাওয়াজা ৩৮, ওয়াটসন ১৩, স্মিথ ৬, ওয়ার্নার ৬, ম্যাক্সওয়েল ২২, মার্শ ২৪, অ্যাগার ৯, ফকনার ২, কোল্টার-নাইল ১, নেভিল ৭*, জামপা ২*; ম্যাকক্লেনাগান ৩/১৭, অ্যান্ডারসন ২/২৯, স্যান্টনার ২/৩০, সোধি ১/১৪ )

ফল: নিউ জিল্যান্ড ৮ রানে জয়ী

ম্যাচ সেরা: মিচেল ম্যাকক্লেনাগান (নিউ জিল্যান্ড)

শেয়ার