গাছ কেটে মহাসড়ক অবরোধ ও যানবাহন ভাংচুর ॥ যশোরে বিএনপি ও জামায়াতের ৮২ জনের নামে চার্জশিট

mamla
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সদরের পদ্মবিলায় গাছ কেটে মহাসড়ক অবরোধ, যানবাহন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ মামলায় বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের ৮২ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ। কোতোয়ালি মডেল থানার এসআই তৌহিদুল ইসলাম আদালতে এ চার্জশিট দাখিল করেন। এঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মকিবুর রহমান ও মফিজুর রহমান নামে দুই আসামিকে অব্যাহতি দেয়ার সুপারিশ করা হয়েছে।
অভিযুক্তরা হলেন, যশোরের মিজান খান, আব্দুর রহমান, আব্দুর রহিম, কামাল উদ্দিন, জিল্লুর রহমান, নেছার উদ্দিন, ওবাইদুর রহমান মুন্না, মিজানুর রহমান বাবু, আজম, তারেক, ইকরামুল, আব্দুল করিম, রুবেল হোসেন, রমজান আলী, আলী হোসেন আলিফ, রাকিব, শফিয়ার রহমান, আবু বক্কার, শফিকুল ইসলাম, লালন, আক্তার হোসেন, ইব্রাহিম হোসেন, বিল্লাল হোসেন, মেহেদী হাসান, কাজী কাদির, মেম্বর আমিনুর রহমান, আব্দুল আজিজ সরদার, জাহিদ হোসেন, সিরাজুল ইসলাম বাবু, শহিদুল ইসলাম খান, মাহাফুজুর রহমান, আব্দুল করিম, নজরুল ইসলাম, আব্দুল গফ্ফার, আলী কদর, রবিউল ইসলাম, রুবেল হোসেন, আজিজুল হক, মইন উদ্দিন, লিয়াকত আলী, হাবিবুল্লাহ, আব্দুল্লাহ, শহিদুল ইসলাম, মতিয়ার রহমান, রফিকুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান, সোহেল আহেম্মদ, ফিরোজ হোসেন, বিল্লাল হোসেন, শেখ বাবু, রফিকুল ইসলাম, মাওলানা আব্দুল হান্নান, ওবাইদুল ইসলাম, জাহিদ হাসান ফয়সাল, আবু বক্কার, আফতাব হোসেন মুকুল, আবু সাইদ, মামুন হোসেন, সাইদুর রহমান, আব্দুল কাদের খান, পারভেজ হোসেন, জিল্লুর রহমান, ইলিয়াস হোসেন, রেজাউল করিম, বোরহান উদ্দিন, জামাল উদ্দিন, আব্দুল হালিম, ওলিয়ার রহমান, হারুন অর রশীদ, ইসমাইল হোসেন, হাবিবুর রহমান, নেছার উদ্দিন, শহিদুল খান, মাওলানা আব্দুল আজিজ, মোস্তফা কামাল, মেহেদী হসান, নুর উদ্দিন, মনিরুল ইসলাম, আবুল হাশেম, মুরাদ হোসেন, নাছির উদ্দিন, আবুল কাশেম ও রওশন আলম।
চার্জশিটের বিবরণে বলা হয়, ২০১৫ সালের শেষ দিক থেকে বিএনপি ও জামায়াত শিবিরের সন্ত্রাসীরা রাজনৈতিক কর্মসূচির নামে সারা দেশে নাশকতা চালায়। সেসময় সদর উপজেলার যশোর-খুলনা মহাসড়কের পদ্মবিলায় গাছ কেটে অবরোধ, যানবাহন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। ওই বছরের ১৮ জানুয়ারি রাত সাড়ে ১১ দিকে বেশ কয়েকটি যানবাহন ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করার সময় দুইজনকে আটক করে পুলিশ।
এ ব্যাপারে বসুন্দিয়া ক্যাম্পের এসআই জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে নাশকতা, যানবাহনে অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুরের অভিযোগে ৩০ জনে নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আসামি দিয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে আটক আসামিদের দেয়া তথ্য এবং স্বাক্ষীদের বক্তব্যে এঘটনার সাথে জড়িত থাকায় ৮২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে এ চার্জশিট দেয়া হয়েছে।

শেয়ার