নির্বাচনী সহিংসতা বাড়ছে॥ শরণখোলায় দুই প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে ৩০ জন হাসপাতালে

nirbachoni sohingsota
শরণখোলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি॥ বাগেরহাটের শরণখোলায় ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দু’মেম্বর প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে দফায় দফায় হামলায় উভয়পক্ষের ৩০ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে আহত ২২ জনকে শরণখোলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে উপজেলার সাউথখালী ইউনিয়নের সোনাতলা গ্রামে এঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ৪ জনকে খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। সচেতন মহল বলছেন ইউপি নির্বাচনকে ঘিরে সহিংসতা বেড়েই চলেছে। এ অবস্থায় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা বৃদ্ধির প্রয়োজন।
এলাকাবাসি ও ভুক্তভোগী সুত্রে জানা যায়, সন্ধ্যার আগ থেকে সাউখখালী ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের মডেল বাজার এলাকায় মেম্বর প্রার্থী জাহাঙ্গীর হাওলাদার ও শফিকুল ইসলাম ডালিমের প্রচারণা চলাকালে উভয়পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়। এক পর্যায়ে উভয় প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে হামলা, পাল্টা হামলা ও সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনায় ডালিমের সমর্থক সোনাতলা গ্রামের জাহাঙ্গীর হোসেন (৪০), জামাল গাজী (২৮), আনোয়ার মাতুব্বর (৩৫), শহিদুল ফরাজী (৪০), শামীম আকন (৩৮), আবুল কালাম (৩৫), অহিদুল ফরাজী (৪৫), নাসির হাওলাদার (৩৫), রাসেল শিকদার (২৭), সবুজ মিয়া (২০), আবু বকর সিদ্দিক বাবু (৪৫), মোঃ মোস্তফা (৫৫) ও তাঁর স্ত্রী শাহেদা (৪৫)। অপরদিকে জাহাঙ্গীরের সমর্থক আলমগীর (৩৮), ইউসুফ জমাদ্দার (৫০), মজিবর হাওলাদার (৫০), পান্না হাওলাদার (৩৫), মাসুম জোমাদ্দার (২৫), আঃ বারেক গুরু (৫০), রাজু জোমাদ্দার (১৫), রেজাউল হাওলাদার (৩৫), রুহুল মল্লিক (৪০) কে শরণখোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে রাজু, রেজাউল, রুহুল ও আবু বকর-কে ওই রাতেই উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা মেডিকেলে প্রেরণ করা হয়েছে। মেম্বর প্রার্থী ডালিম ও জাহাঙ্গীর খালাতো ভাই হওয়ায় থানায় কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি বলে পারিবারিক সূত্র জানায়। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংসার প্রক্রিয়া চলছে। শরণখোলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহ আলম মিয়া জানান, ঘটনার খবর পেয়ে সাথে সাথে পুলিশের উপ-পরিদর্শক মহিউদ্দিন ও শিমুল মোল্লার নেতৃত্বে একটি টিম ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। তবে সংশ্লিষ্ট সাউথখালী ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন বিষয়টি উভয়ের মধ্যে মিমাংসা করে দিবেন বলে দায়িত্ব নিয়েছেন। যার কারণে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।

শেয়ার