কপিলমুনিতে প্রকাশ্য দিবালোকে সরকারি খাস সম্পত্তি দখল!

khash jomi
কপিলমুনি (খুলনা) প্রতিনিধি॥ পাইকগাছা উপজেলার ঐতিহ্যবাহী রায় সাহেব প্রতিষ্ঠিত কপিলমুনি বাজারের কাঠগোলা নামক স্থানে অবস্থিত সরকারের খাস সম্পত্তি প্রকাশ্য দিবালোকে দখল করে সেখানে ঘর নির্মাণ শুরু করে দিয়েছে জনৈক পাপ্পু গং। ফলে সরকারের কোটি কোটি টাকার সম্পত্তি বেদখল হতে চলেছে। এখানে কেউ ডিসিআর নেওয়ার দোহায় দিয়ে আবার কেউ জোরপূর্বক রাতের আঁধারে দোকান ঘর নির্মাণ করছে। স্থানীয় ভূমি অফিস ও উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তাকে অবজ্ঞা করে যে যার মত করে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। এদিকে এই ঘটনায় স্থানীয় কাঠ ব্যবসায়ীদের সাথে অবৈধ দখলকারীদের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা করছেন এলাকার অন্য ব্যবসায়ী ও সচেতন মহল। এ ব্যাপারে কাঠ ব্যবসায়ীরা সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
অভিযোগে জানা গেছে, কপিলমুনি বাজারের কাঠগোলায় অবস্থিত সরকারের পরিত্যাক্ত খাস সম্পত্তিতে কাঠ ব্যবসায়ী সমিতি নিজ খরচে মাটি ফেলে কাঠের গুড়ি রাখার মত পরিবেশ তৈরি করে ব্যবসার মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ করে আসছে। এমতাবস্থায় বসন্তরের কোকিলের মত গতকাল হঠাৎ হরিদাশকাটী গ্রামের মৃতঃ মুজিবর রহমানের ছেলে জনৈক পাপ্পু গং ঐ জায়গায় প্রকাশ্য দিবালোকে তড়িঘড়ি করে বাঁশ দিয়ে ঘর নির্মাণ শুরু করে দেয়। তাৎক্ষণিক কাঠ ব্যবসায়ী সমিতির লোকজন বাঁধা দিলে বাধে-বিপত্বি। এ সময় কোন উপায়ন্ত না পেয়ে ব্যবসায়ীরা কাঠ ব্যবসায়ী সদস্যদের স্বাক্ষরিত একটি লিখিত আভিযোগ স্থানীয় ভূমি অফিস ও ফাঁড়ি পুলিশের কাছে দাখিল করেন। এক পর্যায়ে পাইকগাছা উপজেলায় সদ্য যোগদানকৃত এসিল্যান্ড (ভূমি)’র নির্দেশে সার্ভেয়ার শাকিরুল ইসলাম ও কপিলমুনি ভূমি অফিসের তহশীলদার আবু বক্কর সিদ্দিকী সরজমিনে গিয়ে কাজ বন্ধ রাখার জন্য বলেন। কিন্তু ঔদ্ধত্বপূর্ণ আচরণ করে পাপ্পু গং। এরপর থানা অফিসার ইনচার্জের নির্দেশে কপিলমুনি ফাঁড়ি ইনচার্জ আব্বাস আলী সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করেন। সর্বশেষ পাপ্পু গং পুনরায় কাজ চালিয়ে যাবার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ সহ জনপ্রতিনিধিদের কাছে গিয়ে ধর্না দিচ্ছে বলে জানা যায়। এ ব্যাপারে কাঠ ব্যবসায়ী সমিতির সদস্যগণ, বাজারের অন্য ব্যবসায়ী, এলাকাবাসী ও সচেতন মহল স্থানীয় এমপিসহ পাইকগাছায় সদ্য যোগদান করা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মুহাম্মদ নাজমুল হকের জরুরী হস্থক্ষেপ কামনা করেছেন।

শেয়ার