বসুন্দিয়া শিবির অফিসে গোপন ঘর তৈরি আটক ৬ জন রিমান্ডে

rimand
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ যশোর সদর উপজেলার গাইদগাছি গ্রামে বসুন্দিয়া শিবির অফিসে গোপন ঘর তৈরি, নাশকতার পরিকল্পনা, বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জামসহ আটক ৬ জনকে তিনদিন করে রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ।
মঙ্গলবার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. শাজাহান আলী এ রিমান্ড মঞ্জুর করেন। আসামিরা হলেন, গাইদগাছি গ্রামের মুজিবর রহমানের ছেলে মিজানুর রহমান টিটু, কেফায়েতনগর গ্রামের শহিদুল ইসলমের ছেলে আলামীন, বসুন্দিয়া গ্রামের মৃত আব্দুর রবের ছেলে আব্দুল ওয়াদুদ, কোরবান মোল্লার ছেলে সালাম মোল্লা, জগন্নাথপুর গ্রামের আক্কাস মোল্লার ছেলে ইলিয়াস হোসেন ও মৃত গোলাম রহমানের ছেলে আকবর ডাক্তার।
মামলার এজাহারে জানা গেছে, বর্তমান সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে নাশকতার মাধ্যমে জনমনে আতংক ছড়িয়ে দেয়ার চেষ্টা করে জামায়াত-শিবির। এ কারণে সদর উপজেলার বসুন্দিয়া ইউনিয়ন শিবির অফিসে গোপন ঘর তৈরি করে ভিতরে অস্ত্র রাখার চেষ্টা করছিল।
আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ১০ মার্চ বেলা ১১টার দিকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বসুন্দিয়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই সোহরাব হোসেনের নেতৃত্বে ইউনিয়ন শিবির অফিসে অভিযান চালায়। এসময় ৬ জনকে আটক করে। একই সাথে অফিসে তল্লাশি চালিয়ে ১০টি বোমা ও বোমা তৈরির সরঞ্জাম এবং বিভিন্ন কাগজপত্র ও বই উদ্ধার করা হয়। এসময় সেখানে থাকা জামায়াত-শিবিরের অনেকেই দৌড়ে পালিয়ে যায়।
এ ঘটনায় বসুন্দিয়া পুলিশ ক্যাম্পের এএসআই ইসমাইল হোসেন বাদী হয়ে আটক ৬ জনসহ ৫৩ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরো ২০/৩০ জনের বিরুদ্ধে নাশকতা ও বিস্ফোরক আইনে মামলা করেন। মঙ্গলবার রিমান্ড আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক প্রত্যেক আসমিকে তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

শেয়ার