কুকুরের বিয়ে, অতিথি ৫ হাজার!

kutta
সমাজের কথা ডেস্ক॥ আহসান হাবীবের ‘ধন্যবাদ’ কবিতাটি নিশ্চই পড়েছেন। কিন্তু সেই কবিতার কুকুরের কাহিনিকেও ছাড়িয়ে গেছে ভারতের উত্তরপ্রদেশের কৌশম্বা জেলার পাওয়ারা গ্রামে।
সাজানো গাড়ি, লোক লশকর, বাদ্য-বাজনা, এমনকী ডিজে পার্টিও আছে। ত্রুটি নেই প্রথা, আচার ও আড়ম্বরেরও। একটা হিন্দু বিয়ে বাড়িতে যেমনটা হয় তার সবই আছে। কিন্তু পাত্রের আসনে সাজগোজ করে বসে আসে একটি কুকুর! সাজানো গাড়িতে করেই একেবারে হিন্দু প্রথা মেনে বিয়ে করতে এসেছে সে।
কুকুরের মালিক বসন্ত ত্রিপাঠি ও কুকুরির জঙ্গ বাহাদুর। বিয়েতে আমন্ত্রিতর সংখ্যাটাও অবাক করার মতো। একেবারে ৫ হাজার। সেই অনুযায়ী আয়োজনও করা হয়েছে। যতোই হোক বিয়েবাড়ি বলে কথা, বরযাত্রীদের একটু যতœ-আত্তি না করলে হয়?
পাওয়ারা গ্রামে কুকুরের বিয়ে দেয়ার প্রথাটা অবশ্য নতুন নয়। বেশ কয়েকবছর আগে ওই গ্রামেরই ১৭ বছরের এক যুবকের ভাগ্যগণনা করে জানতে পারা যায় তার প্রথম স্ত্রী মারা যাবে। তাই বিপদ কাটাতে কুকুরের সঙ্গে বিয়ে দেয়ার কথা বলেন জ্যোতিষী। তিনি ব্যাখ্যা দিয়ে বলেন, প্রথম স্ত্রী কুকুরটি মারা গেলে তো আর সমস্যা নেই।
এরপর থেকেই পাওয়ারা গ্রামে কুকুরের বিয়ে দেয়ার রেওয়াজ চলে আসছে। গ্রামের অনেকেই অবশ্য বলেন, মানুষের বিয়ে হতে পারলে কুকুরেরই বা হবে না কেন? আর কুকুরির মালিক তো রীতিমতো চোখের জলেই বিদায় দিলেন কন্যাকে!

শেয়ার