যশোরে কাস্টমস্ কর্মচারীর নেতৃত্বে ভারতীয় পণ্য আটক করে আত্মসাৎ

coustoms office
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ গত দু’দিনে বাবু নামে যশোরে এক কাস্টমস্ কর্মচারীর নেতৃত্বে পৃথক অভিযানে ভারতীয় পণ্য আটক করে আংশিক আত্মসাৎ করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। আর কিছু পণ্য টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। গত সোমবার সকালে শহরের চাঁচড়ার চেকপোস্ট এলাকা থেকে রায়পাড়ার কুটি নামে এক চোরাচালানীর একটি নসিমন ভর্তি ভারতীয় পণ্য আটক করেন বাবু। এরমধ্যে গুড়ো দুধ, জিরা ও এলাচ ছিল বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে। পরে টাকার বিনিময়ে ওই মালামাল ছেড়ে দিয়েছেন বাবু।
শহরের রেলগেট পশ্চিমপাড়ার নাজমা খাতুন নাজুর কাছ থেকে সোমবার সকালে চিত্রামোড় থেকে ছয় বস্তা গুড়ো দুধ আটক করেন বাবু। পরে ওইদিন রাত পর্যন্ত ২০ হাজার টাকা ঘুষ দাবি করেন বাবু। শেষ পর্যন্ত চার হাজার টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়।
এছাড়া মঙ্গলবার সকালে ঝিনাইদহের নার্গিস নামে এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে ২০ বস্তা জিরা ও গুড়ো দুধ আটক করেন বাবু। এরমধ্যে ১৪ বস্তাই তিনি আত্মসাৎ করেছেন। বাকি ৬ বস্তা ফিরিয়ে নেয়ার জন্য ব্যবসায়ী নার্গিসকে বলেছেন বাবু।
পণ্য আটকের ব্যাপারে বাবু স্বীকার করলেও টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার ব্যাপারে তিনি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, পারভেজ নামে এক স্যার আছেন। সাংবাদিকদের সেখানে জিজ্ঞাসা করার কথা বলেন।
এদিকে, ভুক্তভোগী এক চোরাচালানী জানিয়েছেন, বাবু কাস্টমসের একজন গাড়ি চালক। প্রতিনিয়ত তিনি যশোরের বিভিন্নস্থানে অভিযান চালান। ওই অভিযানে ভারতীয় অবৈধ জিরা, এলাচ, চা-পাতা, চকলেট, গুড়ো দুধ, লবণ, কাপড়সহ বিভিন্ন পণ্য আটক করেন। মালামাল আটকের পর পারভেজ নামে এক কর্মকর্তাকে ডেকে আনেন। কয়েকদিন আগে মন্মথ নামে মাগুরার এক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে কয়েক লক্ষ টাকার গুড়ো দুধ, চকলেট ও এলাচ জব্দ করেন বাবু। মফিজ এবং রিপন নামে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)’র দুই ‘সোর্স’ মন্মথের ওই মালামাল ধরিয়ে দেয়। আবার এক লাখ টাকা ঘুষের বিনিময়ে তাকে ওই দুই ব্যক্তিই ছাড়িয়ে নেয়।

শেয়ার