যশোরে ইজিবাইকে চলছে ভিডিও প্রদর্শন, বাজছে গান ॥ শহরে বাড়ছে যাতায়াত ঝুঁকি, দেখার কেউ নেই

easybyke
রুহুল আমিন॥
যশোরে পৌরসভার লাইসেন্সধারী ইজিবাইকে সংখ্যা সাড়ে সাতশ’। কিন্তু শহরে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে হাজার হাজার ইজিবাইক। সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আরো কয়েকশ’ ব্যাটারি চালিত রিকসা। এসব ইজিবাইকের উঠতি বয়সী অদক্ষ চালকরা লাগিয়েছেন গান শোনার প্রযুক্তি। বিকট শব্দে গান বাজাতে বাজাতে শহরে চলছে ইজিবাইক। যা পূর্বের যানজটযুক্ত শহরকে আরো ঝুঁকিপূর্ণ করে তুলেছে। ফলে ছোট বড় দুর্ঘটনা যেমন ঘটছে, তেমনি বাড়ছে পথচারীদের বিরক্তি। তবে শহরবাসীর এ দুর্ভোগের বিষয়ে প্রশাসনের কোন মাথাব্যাথা নেই।
যশোর শহরের দড়াটানা, চিত্রামোড়, চৌরাস্তা, মনিহার, খাজুরা বাসস্ট্যান্ড, পালবাড়ী, ধর্মতলা, আরবপুর, চাচড়া চেকপোস্ট, টার্মিনাল, ঝুমঝুমপুরসহ প্রতিটি পয়েন্টের ইজিবাইকে গান বাজানোর প্রযুক্তি যুক্ত করা হয়েছে। এমনকি কোন কোন ইজিবাইকে ভিডিও চিত্র প্রদর্শণ করা হচ্ছে। এছাড়া চালকের আসনে নেওয়া হচ্ছে অতিরিক্ত যাত্রী। তরুণ বয়সী যাত্রীদের আকর্ষণ করতে গাড়িতে ভিডিও ও গান বাজানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে বেশ কয়েকজন চালক জানিয়েছেন। তাদের দাবি, যেসব ইজিবাইকে অডিও গান বা ভিডিও প্রদর্শণ করা হয় তাদের যাত্রী বেশি হয়।
খাজুরা বাসস্ট্যান্ডে আতাউর রহমান নামে এক যাত্রী অবশ্য চালকদের এমন ব্যবস্থায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেন, শহরে ইজিবাইকে যাতায়াতের পরিবেশ খুবই খারপ। যে কোন মুহুর্তে বড়ধরণের দূর্ঘটনা ঘটতে পারে। ইজিবাইকে উচ্চস্বরে গান বাজানো হচ্ছে। যার তালে তালে যাত্রীদের পাশাপাশি চালকও নাচে। তিনি এসব ইজিবাইকের বিরুদ্ধে প্রশাসনকে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।
এ ব্যাপারে জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট সোহেল হাসান বলেন, ইজিবাইক অবৈধ যান। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হাইকোর্টের নির্দেশনা রয়েছে। মাসিক আইনশৃঙ্খলা মিটিংয়ে নিয়মিত আলোচনা হয়। শহরে বিভিন্ন সময় প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযারও চালানো হয়েছে।

শেয়ার