মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্বভার অনুষ্ঠানে মিলনমেলা ॥ আধুনিক পৌরসভা গড়তে সবকিছুই করা হবে: শাহীন চাকলাদার ॥ দুর্নীতিমুক্ত পৌরসভা গড়তে চাই: মেয়র জহিরুল ইসলাম রেন্টু

ren
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ রোববার সকাল থেকেই যশোর পৌরসভা আঙিনায় জমতে শুরু করে মানুষের ভিড়। বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়ে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের আনাগোনা। নবনির্বাচিত মেয়রের দায়িত্বভার গ্রহণ অনুষ্ঠান উপলক্ষেই তাদের স্বতঃস্ফূর্ত আগমন। শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে উপস্থিত হন নির্বাচিত কাউন্সিলরদের সমর্থকরা। আর বেলা ১২ টা ২০ মিনিটে অনুষ্ঠানস্থল পৌর চত্বরে আসেন প্রধান অতিথি যশোর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহীন চাকলাদার। সঙ্গে ছিলেন নির্বাচিত পৌরপিতা জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু। এসময় আগে থেকে প্রস্তুত পৌর কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা ফুল ছিটিয়ে তাদের বরণ করে নেন। এমন আনন্দঘন অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে গতকাল নাগরিকদের সেবার দায়িত্ব নিলেন জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু। তিনি পৌরসভা দপ্তরে প্রথম পা রেখে খাতায় স্বাক্ষর করে আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব গ্রহণ করেন। এরপর শুরু হয় পৌর আঙিনায় নির্মিত মঞ্চে দায়িত্বভার গ্রহণ অনুষ্ঠান। এ সময় নতুন পৌরপিতা জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টুর সভাপতিত্বে শুরু হয় অনুষ্ঠান।
এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শাহীন চাকলাদার বলেন, যশোর শহরকে পরিপাটি করে সাজানোর জন্য দরকার ইচ্ছা ও আন্তরিকতার। আধুনিক পৌরসভা গড়তে যা করণীয় সবকিছুই করা হবে। যশোর শহরে পানি নিষ্কাশনের সমস্যা ছিল। সমাধানে বিশাল ড্রেনেজ কার্যক্রম চলছে। যেখানে ড্রেন হচ্ছে সেখানে রাস্তা নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন। তিনি বলেন, ৭নং ওয়ার্ডের মানুষ দীর্ঘদিন জলাবদ্ধতার শিকার। যে কোন মূল্যে জলাবদ্ধতা দূর করা হবে। তিনি আরো বলেন, যারা দুর্নীতি করবেন তাদের পৌরসভায় কোন জায়গা হওয়া ঠিক না। যার যার দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করা উচিত। তাহলে মানুষ ঠিকমতো সেবা পাবে। পৌরসভায় একটি হেলথ সেন্টার আছে। সেখানে পৌরসভার মানুষকে ফ্রি সেবা দেবার ব্যবস্থা করতে তিনি মেয়রকে তাগিদ দেন।
সভাপতির বক্তব্যে নতুন মেয়র জহিরুল ইসলাম চাকলাদার রেন্টু বলেন, যশোর পৌরসভা সম্পর্কে আমার ধারণা ছিল এখানে হয়তো কিছু অনিয়ম আছে। সেটা দূর করলে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু এর খতিয়ান খুলে দেখলাম এর সব জায়গায় দুর্নীতি। তাই পৌরসভাকে বাঁচাতে হবে। আমরা দুর্নীতিমুক্ত পৌরসভা গড়তে চাই। সকলকে সঙ্গে নিয়ে এ প্রতিষ্ঠানকে পুনর্গঠন করতে হবে। দলমতের উর্ধ্বে থেকে সবাইকে সেবা দিতে চাই। উন্নয়ন না হওয়া পর্যন্ত আমার খাওয়া-ঘুম হারাম থাকবে।
দায়িত্বভার গ্রহণ অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, চার নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মুস্তাফিজুর রহমান মুস্তা, জেলা যুবলীগ সহ-সভাপতি সৈয়দ মেহেদী হাসান, জেলা যুবমহিলা লীগ সভাপতি মঞ্জুন্নাহার নাজনীন সোনালী, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন বিপুল, পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী এস এম শরীফ হাসান, কর আদায়কারী আফজাল হোসেন।
পৌর মেয়রের দায়িত্বভার গ্রহণ অনুষ্ঠানে নবনির্বাচিত কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আহমেদ শাকিল, শেখ রাশেদ আব্বাস রাজ, মোকসিমুল বারী অপু, মুস্তাফিজুর রহমান মুস্তা, হাবিবুর রহমান চাকলাদার মনি, হাজী আলমগীর কবির সুমন, গোলাম মোস্তফা, সন্তোষ দত্ত, আজিজুল ইসলাম, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর আইরিন পারভীন ডেইজি, নাসিমা আক্তার জলি ও শেখ রোকেয়া পারভীন ডলিকে ফুল দিয়ে বরণ করেন পৌর কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা। দায়িত্বভার অনুষ্ঠান যৌথভাবে পরিচালনা করেন পৌর সচিব আব্দুল্লাহ আল মাসুম ও জেলা যুবলীগ নেতা মাহামুদ হাসান বিপু। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযুদ্ধকালীন মুজিববাহিনীর উপপ্রধান আলী হোসেন মনি, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী রায়হান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম আফজাল হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা খয়রাত হোসেন, মোশারোফ হোসেন, আসিফ-উদ-দৌলা সরদার অলোক, রেজাউল ইসলাম, জিয়াউল হাসান হ্যাপি, ইমাম হাসান লাল, আজিজুল ইসলাম মিন্টু, সদর উপজেলা সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারুল ইসলাম, সদর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ওয়াহিদুজ্জামান বাবলু, জেলা কৃষকলীগের সহসভাপতি আব্দুল মতলেব বাবু প্রমুখ।

শেয়ার