ঝিকরগাছায় সন্ত্রাসী লিটন গুলিবিদ্ধ সন্ত্রাসী বাবুর দায় ৪ ছাত্রলীগ নেতার ঘাড়ে !

oniom durniti
নিজস্ব প্রতিবেদক॥ ঝিকরগাছায় যশোরের শংকরপুর রেল বস্তি এলাকার জাহাঙ্গীরের ছেলে বিএনপি ক্যাডার ডাকাত লিটন গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনায় শেষ পর্যন্ত ছাত্রলীগের ৪ নেতাকে ফাঁসাতে থানায় মামলা হয়েছে। স্ত্রীর পরোকীয়ার জের ধরে ৫ মার্চ সকালে প্রকাশ্যে ঝিকরগাছা বাজারে সন্ত্রাসী লিটনকে বাবু নামে আরেক সন্ত্রাসী গুলি করে প্রচার হয়। বিভিন্ন পত্রিকায় ‘ঝিকরগাছায় পরকীয়ার জের ধরে ডাকাত লিটন বাবু কর্তৃক গুলিবিদ্ধ শিরোণামে সংবাদও প্রকাশিত হয় ॥ যেসব সংবাদে থানার ওসি মোল্লা খবির উদ্দিন ও বাবুর শাশুড়ির বক্তব্যে একই দাবির কথা বলা হয়। অথচ সেই ওসি’র অনুমতিতেই ঘটনার সাথে ৪ ছাত্রলীগ নেতা জড়িত মর্মে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। লিটনের মা রহিমা বেগম বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেছেন। মামলার বাদি কোনপক্ষের দ্বারা প্রভাবিত হয়ে এই মিথ্যা মামলাটি করিয়েছেন বলে মনে করছেন সচেতন মহ। এদিকে মিথ্যা মামলা রেকর্ডের ঘটনায় আ’লীগ ও ছাত্রলীগের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। রীতিমত পুলিশের নীতি নৈতিকতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। রীতিমত তোপেরমুখে পড়েছে থানা পুলিশ।
আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের অনেকই বলেছেন, যশোরের বিএনপি ক্যাডাররা লিটন ডাকাতকে নিয়ে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের ফাঁসানো হয়েছে। সোমবার দিনভর ঝিকরগাছার সর্বত্রে পুলিশের ভুমিকার তুমুল সমালোচনা হতে শোনা যায়। অনেকেই এজাহারপত্রে বাদির সাক্ষর (টপসই) নিয়েও সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। এ ব্যাপারে আ’লীগ ও ছাত্রলীগের একাধিক দায়িত্বশীল নেতা জানিয়েছেন, থানার ওসি দ্রুত এ ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণ না করলে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচির ডাক দেয়া হবে।

শেয়ার