লোহাগড়ায় পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবসায়ীকে ইয়াবা দিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগে॥ ধর্মঘট বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশসহ আন্দোলনের প্রস্তুতি

ovijog
লোহাগড়া (নড়াইল) প্রতিনিধি ॥ নড়াইলের লোহাগড়ার কাশিপুর-এড়েন্দা বাজারের এক সুপারী ব্যবসায়ীকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে তুলে গিয়ে ২০ পিস ইয়াবা উদ্ধার নাটক সাজানোর ঘটনায় তোলপাড়ের সৃষ্টি হয়েছে। এভাবে ফাঁসানো গোটা ব্যবসায়ীদের জন্য হুমকি দাবি করে ধর্মঘট বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ী প্রতিনিধিরা। এদিকে ডিবি পরিচয়ে ব্যবসায়ীকে নিয়ে যাওয়ার পর তার আটকের দায় থানা পুলিশ ঘাড়ে নেয়ায় ষড়যন্ত্রের বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে বলে দাবি করেছেন বাজার ব্যবসায়ীরা। ব্যবসায়ীদের অভিযোগের প্রতি সমর্থন জানিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান জানিয়েছেন গত সপ্তাহে এক কৃষককে তুলে নিয়ে গিয়ে পুলিশ ইয়াবা দিয়ে চালান দিয়েছে। এ পর্যন্ত যাদের ফাঁসানো হয়েছে তারা সবাই আ’লীগের নেতাকর্মী। বিষয়টি নিয়ে কাশিপুর-এড়েন্দা এলাকার ব্যবসায়িদের মাঝে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে। ইতিমধ্যে আন্দোলনে যেতে ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন রাজনৈতিক সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের মানুষের সাথে কথা বলেছেন। প্রাথমিক পর্যায়ে ধর্মঘট, বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সমাবেশ করাসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ পাঠানোর সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে সুত্রে জানা গেছে।
লোহাগড়া থানা পুলিশ জানায়, থানার এসআই শাহিনসহ সঙ্গীয় ফোর্স অভিযান চালিয়ে এড়েন্দা বাজার থেকে ২০ পিস ইয়াবাসহ এড়েন্দা গ্রামের শামসলু খানের ছেলে হাসমত খান (৩৫) কে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত হাসমতের নামে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করাসহ তাকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। অথচ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন ভিন্ন তথ্য। ওই বাজারের নন্দী মার্কেটের মালিক ও ব্যবসায়ী উদয় শংকর নন্দী জানান, শনিবার বেলা ১১ টার দিকে বাজারের সুপারি ব্যবসায়ি হাসমত আমার দোকানের সামনে এসে দাঁড়ানো মাত্রই দেখলাম মোটরসাইকেল করে দু’জন অপরিচিত লোক আসেন। তারা আমার দোকানের সামনে এসে মোটরসাইকেল থামিয়ে দাঁড়ান। এরপর একজন হাসমতের সাথে কথা বলতে শুরু করেন। তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি হতে শোনা যায়। এক পর্যায়ে জানতে চাইলে অপরিচিত দু’জনের মধ্যে একজন নড়াইল ডিবি পুলিশের এএসআই আলমগীর বলে দাবি করেন। আমি তার কাছে হাসমতের বিরুদ্ধে কি অভিযোগ জানতে চাইলে তিনি বললেন, হাসমতের বিরুদ্ধে মাদক বিক্রির অভিযোগ রয়েছে। তখন আমি ডিবি কর্মকর্তাকে বললাম, হাসমত ১০/১৫ বছর ধরে বাজারে সুপারিসহ মৌসুমী ফসলের ব্যবসা করে। কোনদিন তার নামে এ ধরনের অভিযোগতো শুনিনি। তখন এএসআই আলমগীর বললেন, আচ্ছা ওসি স্যারের সাথে দেখা করাতে তাকে থানায় নিয়ে যাচ্ছি। নির্দোষ হলে ছাড়া পাবে। উদয় শংকর নন্দী প্রশ্ন তুলে বলেন, ঘটনাস্থলে হাসমতের দেহ তল্লাশি না করে তুলে নিয়ে যাওয়ার ইয়াবা উদ্ধার দেখানো আইনপরিপন্থী। তাছাড়া পাকাঁ রাস্তা ছেড়ে কেন ব্রীজ পার হয়ে নদীর উপারের উল্টো রাস্তা দিয়ে হাসমতকে মোটরসাইকেলে নিয়ে যাওয়া হলো তা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে। বাজারের সুপারি ব্যবসায়ি আকবর আলী (৪০), শ্যামল ঘোষ (৬০)সহ অনেকে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে এ বাজারে ব্যবসা-বাণিজ্য করে আসছেন হাসমত। কোনদিন তার নামে মাদকের বদনাম শুনিনি। এড়েন্দা বাজার বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তরিকুল ইসলাম অভিযোগ করেন, বাজার চলাকালীন বাজারের ব্যবসায়িকে আটক করে নিয়ে ইয়াবার মিথ্যা অভিযোগ ঘাড়ে তুলে দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে তার দেহ তল্লাশি করা হয়নি। অথচ উল্টো পথে নিয়ে হাসমতের পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে ফাঁসানো হয়েছে। তিনি আরো অভিযোগ করেন, ডিবি পুলিশ প্রকৃত মাদক ব্যবসায়িদের সাথে সখ্যতা রাখছে আর নিরিহ ব্যবসায়িদের হয়রানি করছে। কাশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মতিয়ার রহমান অভিযোগ করেন, গত সপ্তাহে ধোপাদহ স্লুইস গেট সংলগ্ন দোকানের সামনে থেকে ধোপাদহ গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে কৃষক রতন শেখ (৩০)কে ডিবি পুলিশ ধরে নিয়ে তার পকেটে ১৪ পিস ইয়াবা ঢুকিয়ে দিয়ে মামলা দায়ের করে। এবার হাসমতকে ফাঁসানো হলো। ডিবি পুলিশ যে দুজনকে হয়রানি করলো তারা আওয়ামী লীগের কর্মী। লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ বিপ্লব কুমার সাহা জানান থানা পুলিশ ইয়াবাসহ হাসমতকে গ্রেফতার করেছে। একই সাথে তিনি এইও দাবি করেন ডিবি পুলিশের এএসআই হাসান এসেছিলেন। গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ আবার এসেছিলেন ডিবি পুলিশের এএসআই হাসান (!) একরমের স্ববিরোধী বক্তব্যে ধোয়াশার সৃষ্টি হয়েছে। এদিকে ফোনে ডিবি’র হাসান জানান, তিনি লোহাগড়াতে যাননি। তবে ডিবি’র এএসআই আলমগীর এড়েন্দা এলাকায় গিয়েছিল। বিষয়টি জানতে এএসআই আলমগীরের মোবাইল নাম্বার চাইলে তিনি পরে দেবেন বলে সংযোগ বিছিন্ন করে দেন। পরে তার সাথে যোগাযোগ করা যায়নি। সর্বশেষ খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কাশিপুরের ব্যবসায়িরা ইতিমধ্যে ধর্মঘটের মাধ্যমে আন্দোলনে নামার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ষড়যন্ত্রের সাথে জড়িত পুলিশের বিরুদ্ধে দৃষ্ঠান্তমুলক শাস্তি নিশ্চিত করতে যাকিছু করণীয় তা করতে ব্যবসায়ীরা একমত হয়েছেন।

শেয়ার